আইপিএল বিতর্ক: বিসিবিকে পাঠানো চিঠিতে কি লিখেছিলেন সাকিব

সংগ্রহীত

আইপিএল বিতর্ক: বিসিবিকে পাঠানো চিঠিতে কি লিখেছিলেন সাকিব

আইপিএল যে সময় শুরু হবে সে সময় শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ আছে বলে আগেই বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। আর সে সময় সাকিব আল হাসানের ছুটি চাওয়া নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

টেস্ট সিরিজের সময় সাকিবের ছুটি চাওয়ার বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা করতে ছাড়েননি স্বয়ং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ বোর্ড কর্তারা। সাকিব টেস্ট খেলতে চান না এমন অভিযোগও তোলা হয়েছিল তার বিরুদ্ধে।

তবে এসব সমালোচনা নিয়ে সে সময় মুখ না খুললেও এখন মুখ খুলেছেন দেশ সেরা অলরান্ডার সাকিব আল হাসান। জানালেন, বিসিবিকে লেখা চিঠিতে কি বলেছিলেন তিনি। সাকিব যে টেস্ট খেলতে চান না এমন কোন কাথাই নাকি লেখা ছিলো না চিঠিতে। শুধু বিশ্বকাপের প্রস্তুতির কথা ব্যাখ্যা করে আইপিএলে যাওয়ার ইচ্ছা জানিয়েছিলেন তিনি।

গতকাল শনিবার রাতে একটি সংবাদমাধ্যমের ফেসবুক লাইভে চিঠির বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন সাকিব। সেখানে তিনি বলেন, ‘চারদিকে শুধু কথা হচ্ছে আমি টেস্ট খেলতে চাই না। আমি নিশ্চিত বিসিবিকে আমি যখন চিঠি দিয়েছি, যাঁরাই বলছেন যে, আমি টেস্ট খেলতে চাই না বা টেস্ট খেলব না, তাঁরা আমার চিঠিটা পড়েননি। এটা হচ্ছে একদম বড় কথা। আমি আমার চিঠিতে কোথাও উল্লেখ করিনি যে আমি টেস্ট খেলতে চাই না। আমি শুধু উল্লেখ করেছি- আমি বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য এই সময়টাতে আইপিএল খেলতে চাই। আমি এটুকুই বলেছি শুধু।’

চিঠি না পড়েই ভুল বার্তা দিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা প্রধান আকরাম খান। সাকিব বলছেন, আকরাম ভাই বারবার বলেছেন, আমি টেস্ট খেলতে চাই না। আমার ধারণা উনি চিঠিটি পড়েননি। আমি পাপন ভাইকে ধন্যবাদ দিতে চাই, উনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। খেলোয়াড়দের এই স্বাধীনতা দেওয়া উচিত। বোর্ড কিংবা বোর্ড প্রধান যদি কোনো ক্রিকেটারকে এভাবে সাহায্য করে, তাহলে ক্রিকেটারের আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায়। পরে ক্রিকেটারদের জাতীয় দলের প্রতি দায়বদ্ধতাও বেড়ে যায়। সেদিক থেকে পাপন ভাইকে ধন্যবাদ দিতে চাই।’

সাকিব আরও বলেন, এই বছরের শেষে ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে। যেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেখানে আমাদের অনেক কিছু অর্জনের সুযোগ আছে। এই দুটি টেস্টে সে সুযোগ নেই। অবশ্যই দল হিসেবে যদি দুটি টেস্ট জিতি, তাহলে অনেক ভালো। কিন্তু বড় চিত্রটা দেখুন, বড় কিছু অর্জনের সুযোগ আছে আমাদের দেশের, সেটাকে ভালো সুযোগ মনে করি।