আজ থেকে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু

আজ থেকে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু

আসিতেছে শুভদিন, দিনে দিনে বহু বাড়িয়াছে দেনা, শুধিতে হইবে ঋণ! কাজী নজরুলের কুলি মজুর কবিতার লাইন দুটিই যেন এখন আর্জেন্টিনার জাতীয় সংগীত। সবশেষ ১৯৮৬ সালে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। এরপর কেবলই অপেক্ষা। তবে সেই অপেক্ষা মধুর হতে পারে কাতারে।

চলতি বিশ্বকাপে সেই মিশনেই আজ বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচে মেসিদের প্রতিপক্ষ সৌদি আরব।

হয়তো কাতার বিশ্বকাপই মেসির শেষ। তবে তার আগে ৩৬ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়ে যেতে চান তিনি। এক জীবনে সব পাওয়া হলেও আজন্ম আক্ষেপের নাম ওই বিশ্বকাপ। সেটিই এবার ঘোচাতে চাইবেন তিনি। ভক্তদের জন্য যেমন জিততে চান, তেমনি চান নিজের জন্যও। তবে অন্য সব বারের থেকে আর্জেন্টিনার থেকে এবার একটু বেশিই আশাবাদী সমর্থকরা। কেননা বিশ্বকাপে আসার আগে ব্রাজিলকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা শিরোপা জিতে কুফা দূর করেছে আলবিসেলেস্তারা। এখন অপেক্ষা বিশ্বকাপের।

লিওনেল স্কালোনির অধীনে এক বদলে যাওয়া আর্জেন্টিনাকে দেখেছে ফুটবল প্রেমীরা। যেই আর্জেন্টিনার উপর আস্থা রাখা যায়। স্বপ্ন বিলাসী হওয়া যায়। কেননা সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ৩৬ ম্যাচে অপরাজিত থেকে কাতারে খেলতে এসেছে আর্জেন্টিনা।

লাতিন অঞ্চলের বাছাইপর্বের কোনো পরাজয়ের স্বাদ পায়নি স্কালোনির দল। সব প্রতিযোগিতায় শেষ পাঁচ ম্যাচে কোনো গোলও হজম করেনি আর্জেন্টিনা। বিপরীতে প্রতি ম্যাচে অন্তত তিনটি গোলসহ সর্বমোট ১৬ গোল দিয়েছে স্কালোনির দল। বিশ্বকাপের আগে সর্বশেষ প্রস্তুতি ম্যাচে গত বুধবার তারা সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে। ফলে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের আশার পালে বেশ ভালোভাবেই হাওয়া লেগেছে।

মেসিদের এবার হিসেব চুকিয়ে দেওয়ার পালা। দারুণ ছন্দেও রয়েছেন তিনি। সব ঠিক থাকলে ২০১৪ ফাইনাল হারের ক্ষতে মলম লাগাতে চাইবেন কাতার বিশ্বকাপ জিতে। দলকে এনে দিতে লড়বেন শেষবার। সেই লক্ষ্যেই আজ প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবকে উড়িয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করতে চায় তার দল।

কাতারে গ্রুপ-সি’র সেরা দল হিসেবে পোল্যান্ড, মেক্সিকো ও সৌদি আরবের উপরে থেকেই প্রথম পর্ব শেষ করতে চায় স্কালোনির দল। অন্যদিকে স্বাগতিক রাশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ২০১৮ বিশ্বকাপ শুরু করেছিল সৌদি আরব। সেই ম্যাচে ৫-০ গোলের পরাজয়ের দুঃসহ স্মৃতি থেকে বেরিয়ে এসে এবার শক্তিশালী আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ভালো খেলা উপহার দিতে চায় অ্যারাবিয়ান ফ্যালকনসরা। যদিও র‌্যাঙ্কিং কিংবা শক্তিমত্তা বিচারে আর্জেন্টিনা তাদের থেকে ঢের এগিয়ে।