আত্মসমর্পণ নয়, লড়াই চলবে: ইউক্রেন

আত্মসমর্পণ নয়, লড়াই চলবে: ইউক্রেন
ইউক্রেনজুড়ে বোমা ও রকেট হামলা অব্যাহত রেখেছে রাশিয়া। প্রায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে খারকিভ, মাইকোলাইভসহ বিভিন্ন শহর। মারিউপোলে রাশিয়ার আত্মসমর্পণের আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউক্রেনের সেনারা।
যেকোনো মূল্যে দেশের পূর্বাঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কিও। একই সঙ্গে চলমান সংকট সমাধানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে কিয়েভ সফরের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের তীব্রতা বেড়েই চলেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, রোববারও (১৭ এপ্রিল) খারকিভ, মাইকোলাইভসহ বিভিন্ন শহরে একের পর এক বোমা ও রকেট হামলা চালায় রুশ সেনারা। এর মধ্যে খারকিভে বেশ কয়েকজন হতাহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি। হামলা থেকে রেহাই পাচ্ছে না ওডেসা বন্দরও।

দেড় মাসেরও বেশি সময় ধরে চলা রুশ সামরিক অভিযানে ইউক্রেনের অধিকাংশ শহরই এখন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। মারিউপোলে ব্যাপক সংঘর্ষের পর রুশ সেনারা শহরটির নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার দাবি করলেও তা প্রত্যাখ্যান করেছে ইউক্রেন। একই সঙ্গে, ইউক্রেনের সেনাদের আত্মসমর্পণ করার জন্য সময় বেঁধে দিলেও তা প্রত্যাখ্যান করে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউক্রেনীয়রা।

এমন পরিস্থিতির মধ্যেই মারিউপোল থেকে দেড় শতাধিক শিশুকে রুশ সেনারা তুলে নিয়ে গেছে বলে দাবি করেছে ক্রিমিয়াভিত্তিক একটি মানবাধিকার সংস্থা।

এদিকে শুধু মারিউপোল নয়, যেকোনো মূল্যে দেশের পূর্বাঞ্চলের নিয়ন্ত্রণও ধরে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি বলেন, রাশিয়ার সেনারা ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে হামলার পরিকল্পনা করছে। দোনবাসকে তারা গুঁড়িয়ে দিতে চায়। তবে, লুহানস্ক ও দোনেৎস্কের সুরক্ষায় ইউক্রেনের সেনারা তাদের জীবন দিতে প্রস্তুত।

ভলোদিমির জেলেনস্কির আহ্বানে সাড়া দিয়ে ইউক্রেনের সেনাদের জন্য আরও সামরিক সহায়তা পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।