আফগানিস্তানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছেলে-মেয়েরা যেভাবে ক্লাস করছে

আফগানিস্তানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছেলে-মেয়েরা যেভাবে ক্লাস করছে

তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর পরিবর্তিত রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল দেশের প্রায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে সেগুলো আবার খুলছে। শিক্ষার্থীরাও ফিরছে ক্লাসে। তবে ক্লাসে ছেলে-মেয়েরা একসাথে বসতে পারছে না। যেভাবে চলছে তাদের ক্লাস :

শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা যা বলছেন
বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে আফগানিস্তানের বড় তিন শহর কাবুল, কান্দাহার আর হেরাতের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং ছাত্র-ছাত্রীরা জানান, কয়েক দিনের বিরতির পর ধীরে ধীরে আবার ক্লাস শুরু হচ্ছে। তবে এখন ছাত্র-ছাত্রীরা পাশাপাশি বসে ক্লাস করতে পারছে না। কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলে আর মেয়েদের মাঝে ঝুলিয়ে দেয়া হচ্ছে পর্দা, কোথাও আবার মাঝে গড়ে দেয়া হয়েছে কার্ড বোর্ডের দেয়াল।

মাঝে পর্দা
কাবুলের আভিসেনা বিশ্ববিদ্যালয়ে সোমবার এভাবেই ক্লাস করেছেন শিক্ষার্থীরা। কয়েকদিন আগেও যেখানে ছেলে আর মেয়ে পাশাপাশি বসেছেন, এখন তাদের বসতে হচ্ছে আলাদা। মাঝে ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে পর্দা।

কাবুলের আভিসেনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাসরুমের বেশ কিছু ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যাচ্ছে। জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষই ছবিগুলো শেয়ার করেছে।

চেহারা
পর্দা বা কার্ডবোর্ডের দেয়াল দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের আলাদা করা হলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাওয়া ছবি অনুযায়ী মেয়েদের এখনো মুখ ঢাকতে বাধ্য করা হয়নি। ওপরের ছবিতেও সেরকমই দেখা যাচ্ছে।

কার নির্দেশে?
তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলে-মেয়েরা কেন এভাবে আলাদা বসছেন? তাদের কি তালেবান এমন নির্দেশ দিয়েছে? এসব প্রশ্নের উত্তর এখনো জানা যায়নি।

অসন্তোষ
তালেবানের নির্দেশে ছাত্র-ছাত্রীদের আলাদাভাবে বসতে হচ্ছে, নাকি পরিবর্তিত পরিস্থিতির কথা ভেবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোই এমন উদ্যোগ নিয়েছে তা না জানা গেলেও বিষয়টিতে অনেক শিক্ষার্থীই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

সূত্র : ডয়চে ভেলে