আফগানিস্তান এখন স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ: তালেবান

আফগানিস্তান এখন স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ: তালেবান

আফগানিস্তানে ২০ বছর ধরে চলা মার্কিন অধ্যায়ের সমাপ্তিকে ‘ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ হিসেবে দেখছে তালেবান গোষ্ঠী। একইসঙ্গে আফগানিস্তানকে ‘স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ’ হিসেবে ঘোষণা করেছে তারা।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) পর্যন্ত সময়সীমা থাকলেও ৩০ আগস্ট বিকেলেই প্লেনে করে কাবুল বিমানবন্দর ছেড়ে যায় সর্বশেষ মার্কিন সেনারা। ফলে নির্ধারিত সময়ের আগেই দেশটিতে সামরিক অভিযানের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করল যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে মার্কিন সেনারা চলে গেলে কাবুল বিমানবন্দর তালেবানের দখলে চলে আসে। এরপর স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকে ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে, বাজি ফাটিয়ে উদযাপনে মাতে তালেবান গোষ্ঠী।

তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ সাংবাদিকদের বলেছেন, ইসলামিক আমিরাত অব  আফগানিস্তান যে একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ—এ ব্যাপারে আমাদের কোনো সন্দেহ নেই। আমেরিকা পরাজিত হয়েছে। জাতির পক্ষ হয়ে আমরা পুরো বিশ্বের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রাখতে চাই।

এ সময় আফগানদের স্বাধীনতা ও ইসলামি মূল্যবোধ রক্ষার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

এর আগে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়ে ২০০১ সালের ৭ অক্টোবর আফগানিস্তানে হামলা শুরু করে। তখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ছিলেন জর্জ ডব্লিউ বুশ (জুনিয়র)।

২০২১ সালের মে মাসে নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন পহেলা সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব মার্কিন সেনাকে দেশে ফিরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেন। জুনে প্রায় ৯০ শতাংশ সেনা যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যায়। ওই সময় থেকেই তালেবানরা আফগানিস্তানের বিভিন্ন প্রদেশে হামলা জোরদার করে। শেষ পর্যন্ত ১৫ আগস্ট তালেবানের হাতে পতন ঘটলো কাবুলের।