আবারও মিয়ানমারের গ্রামে তাণ্ডব চালিয়েছে সেনাবাহিনী

সংগ্রহীত

আবারও মিয়ানমারের গ্রামে তাণ্ডব চালিয়েছে সেনাবাহিনী

ফের মিয়ানমারে তাণ্ডব চালালো দেশটির সেনাবাহিনী। সরকারি বাহিনীর সঙ্গে স্থানীয় গেরিলাদের সঙ্গে সংঘর্ষের পরে মিয়ানমারের মধ্যবর্তী একটি গ্রাম পুড়িয়ে দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। এতে কমপক্ষে দুজন মারা গেছেন। বুধবার রাতে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এই খবর জানিয়েছে।

মিয়ানমারের স্থানীয়রা বিবিসিকে জানিয়েছেন, মঙ্গলবার কিন মা গ্রামে আক্রমণ চালায় দেশটির জান্তা সরকার। গ্রামের ২৪০টি বাড়ির মধ্যে ২০০টি সম্পূর্ণ ধ্বংস করে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেয় তারা। সরকারবিরোধী স্থানীয় এক সশস্ত্র গোষ্ঠীর সঙ্গে সংঘর্ষের পর সেনাবাহিনী গ্রামটিতে হামলা চালায়।

মিয়ানমারে নিযুক্ত যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রদূত ড্যান চাগ এই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে তিনি বলেছেন, ‘সেনা সদস্যরা মাগওয়ের একটি পুরো গ্রাম পুড়িয়ে ধ্বংস করে দিয়েছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে। এতে সেখানকার বৃদ্ধ বাসিন্দারাও নিহত হয়েছেন।

 

সামরিক বাহিনী যে ভয়ংকর অপরাধ করে চলেছে, এই ঘটনার মাধ্যমে তা আবারও প্রদর্শিত হলো এবং এটাও প্রমাণিত হয়েছে যে- মিয়ানমারের মানুষের সঙ্গে সেনাবাহিনীর কোনো সম্পর্ক নেই।’ মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন অবশ্য এই ঘটনার জন্য স্থানীয় ওই গোষ্ঠী ‘সন্ত্রাসী’ উল্লেখ করে তাদের দায়ী করেছে।

এর আগে অং সান সু চি-র নেতৃত্বাধীন নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে গত ১ ফেব্রুয়ারি ক্ষমতা দখল করে দেশটির সেনাবাহিনী। অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে রাজপথে জোরালো প্রতিবাদ গড়ে উঠলে অ্যাকশনে যায় জান্তা সরকার। হত্যা করা হয় আট শতাধিক বিক্ষোভকারীকে। রাজপথে বিক্ষোভ কিছুটা প্রশমিত হয়ে এলেও সেনা সরকারের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধ চালিয়ে যাচ্ছে দেশটির বহু গোষ্ঠী।  ক’দিন আগেই দেশটির চিন রাজ্যে প্রতিরোধ যোদ্ধারা ফাঁদ পেতে ২৭ জন সরকারি সেনাকে হত্যা করে। এর মধ্যেই মঙ্গলবার কিন মা গ্রামে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটলো। সূত্র: বিবিসি