আর্জেন্টিনার জয়ের নায়ক মার্টিনেজ

সংগ্রহীত

আর্জেন্টিনার জয়ের নায়ক মার্টিনেজ

১৯৯০ বিশ্বকাপে গোলপোস্টের নিচে নায়ক বনে গিয়েছিলেন সের্জিও গয়কোচিয়া। যদিও ট্রফিটা ছোয়া হয়নি তখন ম্যারাডোনার। এবার ২০২১ কোপা আমেরিকায় নায়ক আরেক গোলরক্ষক ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ। টাইব্রেকারে আর্জেন্টিনাকে জিতিয়ে ফাইনালে নিয়ে গেলেন যে তিনিই।

তার বদৌলতেই এখন ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা স্বপ্নের ফাইনাল হচ্ছে। জাতীয় দলের জার্সিতে লিওনেল মেসির ট্রফি জয়ের স্বপ্নটাও টিকে থাকলো এই ইমিলিয়ানো মার্টিনেজের কল্যাণে। টাইব্রেকারে তিন তিনটা শট প্রতিহত করলেন তিনি। স্নায়ুক্ষয়ী সময়ে তিনটি শট রুখে দেয়া কম কথা নয়। সেই কাজটি নিপুণভাবে করলেন ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ।

কলম্বিয়ার বিপক্ষে সেমিতে অবশ্য কঠিন পরীক্ষা দিতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। মেসির পাসে লাউতারো মার্তিনেজের গোলে। এরপর কলম্বিয়া ম্যাচে ফেরে প্রবলভাবে। প্রথমার্ধে দুটি প্রচেষ্টা প্রতিহত হয় বারে ও পোস্টে। তবে দ্বিতীয়ার্ধে সমতায় ফেরে ঠিকই। ম্যাচজুড়ে দারুণ খেলা দিয়াজের দুর্দান্ত এক গোলে।

নির্ধারিত সময়েই ম্যাচ জিততে পারত আর্জেন্টিনা। কিন্তু হয়নি। ডি মারিয়া অবিশ্বাস্যভাবে পেলেন না গোলের দেখা। মেসির শট লাগলো পোস্টে। ম্যাচ তাই গড়ালো টাইব্রেকারে।

তখনই ’৯০-র গয়কোচিয়া ফিরলেন মার্তিনেজে। কলম্বিয়ার ৫টি শটের মধ্যে ফিরিয়ে দেন ৩টিই। তিনটি শটই তিনি প্রতিহত করেছেন বা দিকে ঝাঁপিয়ে। ধরতে পেরেছিলেন কলম্বিয়ার খেলোয়াড়দের চোখের ভাসা। প্রথমে ঠেকান সানচেজকে। দ্বিতীয়টি মিনার। পঞ্চম শট নিতে আসেন কলম্বিয়ার কারদোনা। একই কায়দা বা দিকে ঝাঁপিয়ে রক্ষা করেন শট। আর তাতেই জয় নিশ্চিত হয় আর্জেন্টিনার (৩-২)। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে কড়া ট্যাকেলে অ্যাঙ্কেলে জমাট রক্ত নিয়ে খেলা লিওনেল মেসি সতীর্থদের সাথে মেতে ওঠেন ফাইনালে উঠার আনন্দে।