আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৮, বাড়িঘর ভাংচুর

আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৮, বাড়িঘর ভাংচুর

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর পান্টিতে একটি স্কুলের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ৮ জন আহত হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি জাহিদ হোসেন জাফর গ্রুপের সাথে পান্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সামিউর রহমান সুমন মিঞা গ্রুপের লোকজনদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। মাঝে মধ্যেই এই বিরোধ সংঘর্ষে রূপ নেয়।

গত রোববার পান্টির ডাঁসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার দুপুরে স্থানীয় সান্দিয়ারা বাজারে মুক্তিযোদ্ধা শরিফুল ইসলাম দুলালের সাথে প্রতিপক্ষের লোকজনের কথাকাটাকাটি হয়। এনিয়ে উভয় পক্ষ জড়ো হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সান্দিয়ারা বাজার ও বশীগ্রাম ব্রিজ এলাকায় ছড়িয়ে পড়া এই সংঘর্ষে দেশীয় অস্ত্র, রাম দা, ঢাল, সুরকি, লাঠিসোটা, ইট পাটকেল নিয়ে ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় দুই পক্ষের অন্তত ৮ জন আহত হয়।

আহতদের কুমারখালী ও কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সংঘর্ষের পর উভয় পক্ষ প্রতি পক্ষের বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান জানান, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।