ইউয়েফা চ্যাস্পিয়ন্স লিগে প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খেল মেসি-নেইমাররা

ইউয়েফা চ্যাস্পিয়ন্স লিগে প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খেল মেসি-নেইমাররা

ইউয়েফা চ্যাস্পিয়ন্স লিগে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খেয়েছে মেসি-নেইমারের পিএসজি। বেলজিয়ান ক্লাব ব্রুজের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে ফরাসি জায়ান্টরা। এদিকে অপর ম্যাচে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন ইন্টার মিলানকে ১-০ গোলে হারিয়ে আসরের শুভ সূচনা করেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বেলজিয়ান দল ক্লাব ব্রুজের আতিথ্য নিয়েছিলো ফরাসি জায়ান্ট পিএসজি। মেসি-নেইমার-এমবাপ্পেদের নিয়ে সাজানো শক্তিশালী একাদশ নিয়েই মাঠে নেমেছিলো লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের শুরু থেকেই বল দখলে এগিয়ে ছিলো পিএসজি। তবে, আক্রমণে আধিপত্য ছিলো স্বাগতিকদেরই।

ম্যাচের ১৫ মিনিটে কাউন্টার এট্যাকে এগিয়ে যায় ফরাসি জায়ান্টরা। বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা এমবাপে দুই ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে বল বাড়ান ডি বক্সে। কিছুটা অনিয়ন্ত্রিত প্লেসিং শটে লক্ষ্য ভেদ করেন আন্ডার হেরেরা। তবে, সে আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি তাদের। ম্যাচের ২৭ মিনিটে খেলায় সমতা ফেরায় গতিময় ফুটবল খেলতে থাকা ক্লাব ব্রুজ। এদুয়ার্দ সোবোলের পাসে ফানাকেনের শট ডিফ্লেকশনে জড়ায় জালে।

জর্জিনিয়ো উইনালডাম ও লেয়ান্দ্রো পারেদেসকে তুলে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ইউলিয়ান ড্রাক্সলার ও দানিলোকে নামান পিএসজি কোচ পচেত্তিনো। এরপর এমবাপ্পে চোটে পড়লে অনেকটাই নিষঃপ্রাণ হয়ে পড়ে পিএসজির আক্রমণভাগ। ফলে, প্রতিপক্ষের গোল রক্ষকের পরীক্ষা আর সেভাবে নিতে পারেন নি মেসি-নেইমাররা। শেষ পর্যন্ত, পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই মাঠ ছাড়ে দু’দল।

এদিকে, ডি গ্রুপের হাইভোল্টেজ ম্যাচে মিলানের বিখ্যাত স্যান সিরোতে ইন্টারের আতিথ্য নিয়েছিলো স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। টানা তিন আসরে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার হতাশা পেছনে ফেলে ম্যাচের শুরু থেকেই দারুন আক্রমনাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে ইন্টার মিলান। প্রথমার্ধো জুড়ে নিরাজ্জুরিদের আক্রমণ সামলাতেই ব্যাস্ত দেখা দেখা যায় আনচেলোত্তির শিষ্যদের। তবে, ফরোয়ার্ডদের ফিনিশিং দুর্বলতায় গোলের দেখা পায়নি তারা।

 

দ্বিতীয়ার্ধে শুরুতে আবারও রিয়ালের রক্ষণে ভীতি ছড়ায় স্বাগতিকরা। অবশ্য পাল্টা আক্রমণে সাজিয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচে নিয়ন্তণ নিয়ে আসে গ্যালাকটিকোরা। তবে, দুই দলের ফরোয়ার্ডরা জাল খুঁজে পেতে ব্যার্থ হলে নিশ্চিত ড্রয়ের দিকেই এগুচ্ছিলো ম্যাচ।

ম্যাচের ৮৯ মিনিটে ব্যবধান গড়ে দেন রদ্রিগো। কামাভিঙ্গার ভলি থেকে বল পেয়ে লক্ষ্য ভেদ করতে ভুল করেননি এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। ফলে, ১-০ গোলের জয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল মাদ্রিদ।