ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টকে নিয়ে আতঙ্কে ইসরাইল

সংগ্রহীত

ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টকে নিয়ে আতঙ্কে ইসরাইল

ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ধর্মীয় নেতা ও প্রধান বিচারপতি ইব্রাহিম রায়িসি। নতুন এই প্রেসিডেন্টকে নিয়ে আতঙ্কে আছেন ইসরাইল। এ ব্যাপারে তারা উদ্বেগও জানিয়েছে।

নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পরপরই বিশ্বনেতারা অভিনন্দন জানিয়ে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠান রায়িসিকে। সিরিয়া, ইরাক, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে রায়িসিকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠানো হয়েছে। ফিলিস্থিনের পক্ষ থেকে হামাসের এক মুখপাত্রও রায়িসিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এদিকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন শুভেচ্ছা জানিয়ে দু’দেশের মধ্যে ঐতিহ্যগত বন্ধুত্বপূর্ণ ও ভালোপ্রতিবেশীর সম্পর্ককে তুলে ধরেছেন।

তবে ইহুদিবাদী ইসরাইলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লিয়র হাইয়াত ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের গভীর উদ্বেগ থাকা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন। দখলদার ইসরাইলি এই মুখপাত্র দাবি করেন, ‘ইব্রাহিম রায়িসি এখন পর্যন্ত ইরানের সবচেয়ে কট্টরপন্থী প্রেসিডেন্ট।’ রায়িসি ইরানের পারমাণবিক কর্মকাণ্ড বাড়িয়ে দিতে পারেন বলে সতর্ক করেন তিনি।

 

দুই দেশই দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যকার চলা বিরোধ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেছে। তবে সাম্প্রতিক কিছু ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু-দেশের শত্রুতা বেড়েছে। পরিস্থিতি জটিল হওয়ার বড় উৎস ইরানের পারমাণবিক কার্যক্রম।

গত বছর এক শীর্ষ পারমাণবিক বিজ্ঞানী হত্যার জন্য ও এপ্রিলে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ কেন্দ্রের হামলার জন্য ইসরাইলকে দায়ী করেছে ইরান। অন্যদিকে, ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিখুঁত ও শান্তিপূর্ণ নয় বলে জানিয়েছে ইসরাইল। তাদের দাবি, ইরান শক্তিশালী পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির লক্ষ্যে কাজ করছে।