একাদশে চার পরিবর্তন টাইগার

একাদশে চার পরিবর্তন টাইগার
বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর পাকিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ব্যর্থ মাহমুদউল্লাহ বাহিনী। টানা দুই ম্যাচ হেরে সিরিজ খোয়ানোর পর এখন শঙ্কা হোয়াইটওয়াশ এড়ানো নিয়েও।

বছরের শেষ টি-টোয়েন্টিতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সিরিজে প্রথম জয়ের খোঁজে থাকা স্বাগতিক একাদশে আসবে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন। মিরপুরের দু’দলের ম্যাচটি শুরু হবে সোমবার (২২ নভেম্বর) দুপুর ২টায়।
বাজে পারফরমেন্সে নিজেদের এক ম্যাচ থেকে আরেক ম্যাচে ছাড়িয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। একটা জয়ের খোঁজে শেষ ম্যাচে উইকেট যেন নিজেদের পক্ষে থাকে এমন কিছুর চেষ্টা মাঠকর্মীদের। বছরের শেষ টি-টোয়েন্টিতে জয় পেলে যে মান বাঁচবে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা থেকেও।

প্রথম ম্যাচের শিক্ষা থেকে দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নেমে দারুণ সফল হয়েছে সফরকারীরা। বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে ১২৭ এবং দ্বিতীয় ম্যাচে করতে পেরেছে মাত্র ১০৮ রান। অতিথিরা সজজেই পৌঁছে যায় লক্ষ্যে। ফলে এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জয়ের পরও থামতে চায় না পাকিস্তান। সিরিজ ৩-০ করাই এখন বাবর আজমদের লক্ষ্য।

টানা দুই দিনে দুই ম্যাচ। শেষ ম্যাচের আগে তাই অনুশীলন করেনি কোনো দল। টিম হোটেলে বাবর আজম-রিয়াদরা বিশ্রাম নিয়েছেন। মোস্তাফিজ-শরীফুলের ইনজুরিতে। সেই সুবাদে একাদশে অভিষেক হতে পারে পেসার শহিদুল ইসলামের। দলে তৃতীয় পেসার প্রয়োজন হলে খেলানো হতে পারে কামরুল ইসলাম রাব্বীকে। আর সাইফের জায়গায় নিশ্চিত ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমনের। মাঠে নামার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে ইয়াসির আলী রাব্বীর।

সিরিজ জিতে পাকিস্তান স্বস্তিতে। শেষ ম্যাচে সাইডবেঞ্চের দুই-একজনকে বাজিয়ে দেখতে পারেন কোচ সাকলাইন মোশতাক। হোয়াইটওয়াশেই চোখ পাকিস্তানের।

মাঠে দর্শক প্রবেশের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায়, দু’দলের খেলোয়াড়দের ম্যাচের আগে করানো হয়েছে করোনা টেষ্ট। যেখানে খুশির খবর সবারই এসেছে করোনা নেগেটিভ।