এবার বিশিষ্ট নাগরিকদের সঙ্গে ইসির বৈঠক

এবার বিশিষ্ট নাগরিকদের সঙ্গে ইসির বৈঠক

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে এবার ৪০ জন বিশিষ্ট নাগরিককে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। গত ১৩ মার্চ অনুষ্ঠিত প্রথম সংলাপে ৩০ জন শিক্ষাবিদের মধ্যে ১৩ জন উপস্থিত হওয়ায় এবার সংলাপে বেশি ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে ইসি।

ইসি সূত্র জানিয়েছে, গতকাল থেকে বিশিষ্ট নাগরিকদের সংলাপের আমন্ত্রণ জানানো শুরু হয়েছে। এই ৪০ জনের বাইরে আরও নাম যুক্ত হতে পারে। আগামী ২৯ মার্চ সিনিয়র সাংবাদিকদের সঙ্গে সংলাপ আয়োজন করবে কমিশন।

জানা গেছে, সংলাপে আসা প্রস্তাব ও পরামর্শগুলোর ভিত্তিতে নিজেদের কর্মপন্থা ঠিক করবে কাজী হাবিবুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন কমিশন। নতুন এই কমিশন দায়িত্ব নেওয়ার ১৫ দিনের মাথায় গত রবিবার থেকে সংলাপ শুরু করেছে। প্রথম দিনের সংলাপে ৩০ জন শিক্ষাবিদকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। তবে তাতে অংশ নিয়েছিলেন ১৩ জন, বাকি ১৭ জন উপস্থিত হননি। ইসি সূত্র জানায়, যে ৪০ জন বিশিষ্ট নাগরিককে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে তাদের মধ্যে আছেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) বিশেষ ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আটজন উপদেষ্টা। জানা গেছে, ইসির আমন্ত্রণের তালিকায় আরও আছেন সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান, লেখক ও গবেষক মহিউদ্দিন আহমেদ, সিপিডির সম্মানিত ফেলো রওনক জাহান ও মোস্তাফিজুর রহমান, আইনজীবী শাহদীন মালিক, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ তোফায়েল আহমেদ, ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের চেয়ারম্যান কাজী খলীকুজ্জমান, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব মহিউদ্দীন আহমদ, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের বঙ্গবন্ধু চেয়ার সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার, সাবেক রাষ্ট্রদূত এ এফ এম গোলাম হোসেন, সাবেক সচিব আবদুল লতিফ মন্ডলসহ মোট ৪০ জন।