ওডেসায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, শিশুসহ ৮ জনের মৃত্যু

ওডেসায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, শিশুসহ ৮ জনের মৃত্যু

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর মারিউপোলের পর ইউক্রেনের প্রধান বন্দর নগরী ওডেসায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। এতে শিশুসহ অন্তত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বহু মানুষ আহত হয়েছেন বলেও জানানো হয়েছে।

রোববার রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয় এ তথ্য।

এতে বলা হয়, শনিবার দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দরটিতে আঘাত হানে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র। বিধ্বস্ত হয় একটি সামরিক স্থাপনা ও দুটি আবাসিক ভবন। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

কিয়েভের মেট্রো স্টেশনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি হতাহতের খবর নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, এদিন ওডেসা শহরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে শিশুসহ আটজন নিহত হয়েছে।

এর আগে, পূর্বাঞ্চলীয় শহর খারকিভেও রুশ বাহিনী হামলা চালায়। সেখানকার গভর্নর জানান, দোনবাসের উত্তর পশ্চিমের শহরটিতে এদিন ৫০টির বেশি রকেট বা গোলা ছুড়েছে রুশ বাহিনী। মৃত্যু হয়েছে ৩ জনের। আহত ৭ জন।

ইউক্রেন কর্মকর্তারা শনিবার বলেছেন, ইউক্রেনে এ পর্যন্ত ২১,৬০০ রুশ সেনা মারা গেছে।

এদিকে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেন্সকি রাশিয়ার নেতা ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে “যুদ্ধের অবসান” ঘটানোর লক্ষ্যে আবারও বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছেন।

জেলেনস্কি শনিবার কিয়েভের কেন্দ্রস্থলে একটি মেট্রো স্টেশনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘আমি মনে করি, যে এই যুদ্ধটি শুরু করেছে, সেই এটি শেষ করতে সক্ষম হবে’।

তিনি আরও বলেন, তিনি পুতিনের সাথে ‘সাক্ষাত করতে ভয় পান না’ যদি এই সাক্ষাতের ফলে দুই দেশের মধ্যে শান্তি চুক্তি সম্পাদনের পথ উন্মুক্ত হয়।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোর থেকে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান চালাচ্ছে রাশিয়া। অভিযানে রাশিয়ার ছোঁড়া বোমা আর রকেটে কেঁপে উঠছে ইউক্রেনের বিভিন্ন শহর। এর মধ্যে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি নগরী দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী। ইউক্রেনে রুশ সেনাদের হামলায় প্রতিদিনই বাড়ছে নিহতের সংখ্যা।