ওমিক্রন ভয়ংকর গতিতে ছড়াচ্ছে,ফাউচির সতর্কবার্তা

ওমিক্রন ভয়ংকর গতিতে ছড়াচ্ছে,ফাউচির সতর্কবার্তা
বড়দিন ঘিরে ভ্রমণে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট আরও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা বাড়ছে। পাশাপাশি পূর্ণ ডোজ টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যেও সংক্রমণ বাড়ার শঙ্কা রয়েছে বলে সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এদিকে ইরানে প্রথম একজনের দেহে শনাক্ত হয়েছে ভ্যারিয়েন্টটি। আর ওমিক্রনের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালগুলোতে পূর্ব প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত সরকার।

করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের চেয়েও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে ওমিক্রন। ডেল্টার ভয়াবহতাই এখনও কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়নি। তার ওপর নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের দাপটে উদ্বিগ্ন বিশ্ববাসী। এমন পরিস্থিতিতেই বড়দিনকে ঘিরে ভ্রমণে ওমিক্রনের সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দিলেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউচি।

পূর্ণ ডোজ টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যেও সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে সতর্ক করেছেন তিনি। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সচেতন থাকার পাশাপাশি টিকার বুস্টার ডোজ নেওয়ার আহ্বানও জানান ড. ফাউচি।

এই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ বলেন, ওমিক্রনের সংক্রমিত করার অসাধারণ সক্ষমতা রয়েছে। সারা বিশ্বে দাপট দেখিয়ে যাচ্ছে ভ্যারিয়েন্টটি। মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার মতো সতর্কতাগুলো মেনে চলা দরকার। আমি মার্কিন নাগরিকদের টিকা এবং বুস্টার ডোজ গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি।

এর আগে গেল শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) হোয়াইট হাউসে সংবাদ সম্মেলনে ড. অ্যান্থনি ফাউচি টিকা গ্রহণ না করা ব্যক্তিদের মারাত্মক সংক্রমিত হওয়ার এবং হাসপাতালে ভর্তির ঝুঁকি অনেক বেশি বলে জানান।

এদিকে ইরানে প্রথম একজনের দেহে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। রোববার (১৯ ডিসেম্বর) দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। আক্রান্ত ব্যক্তি সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাত ভ্রমণ করেছিলেন বলে জানান কর্তৃপক্ষ। আরও দুই ব্যক্তি ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন বলে ধারণা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

টানা কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কমার পরপরই ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের খবর জানা গেল। ইরানে ৬০ শতাংশের বেশি দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন। বর্তমানে অধিকাংশ নাগরিকই বুস্টার ডোজ নিতে পারবেন।

ভারতে দিন দিন ওমিক্রনে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এর আগে ডেল্টার কবলে নাকাল হয়ে পড়েছিল দেশটি। তাই ওমিক্রন মোকাবিলায় আগে থেকেই রাজধানী নয়াদিল্লির হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেন সরবরাহ, বেডের সংখ্যা বাড়ানোসহ নানা পূর্ব প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রশাসন। ভারতে ওমিক্রন শনাক্তের হার ১০০ ছাড়িয়েছে।