করোনার মধ্যেই মামলা প্রত্যহার না হলে হরতালের ডাক ছাত্রলীগের

সংগ্রহীত

করোনার মধ্যেই মামলা প্রত্যহার না হলে হরতালের ডাক ছাত্রলীগের

সারাদেশে চলছে সরকার ঘোষিত লকডাউন। সরকার জনগণকে ঘরে রাখতে ও স্বাস্থ্যবিধি মানাতে অভিযানও চালাচ্ছে। কিন্তু  করোনার এই সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেই ২৪ ঘন্টার মধ্যে মামলা প্রত্যহার না হলে আগামী সোমবার লালমনিরহাটে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে জেলা ছাত্রলীগ। লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাবেদ হোসেন বক্করের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যহারে এই আল্টিমেটাম দেয় জেলা ছাত্রলীগ। এরপরও যদি সমাধান না হয়, তাহলে পরবর্তীতে কঠিন কর্মসূচি দেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেয়া হয়  জেলা ছাত্রলীগ।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) রাত ৮টায় জেলা ছাত্রলীগ অফিসে সংবাদ সম্মেলন করে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন লালমনিরহাট পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম পাপ্পু।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাবেদ হোসেন বক্করের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম পাপ্পু।

পাপ্পু বলেন, লালমনিরহাট জেলায় এক যুগ ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান একনায়কতন্ত্র কায়েম করে লিমিটেড কোম্পানিতে পরিণত করার চেষ্টা করছেন। মতিয়ার রহমান তার আপন ভাগনে ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হতে না পারায় বক্করের সুনাম ক্ষুণ্ন করতে বিভিন্ন পায়তারা করে আসছেন।

এর আগে সন্ধ্যায় জেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে থানায় অবস্থান নেন ছাত্রলীগের নেত-কর্মীরা।

ছাত্রলীগ সভাপতি জাবেদ হোসেন বক্করকে দমাতেই অ্যাডভোকেট মতিয়ার তার আপন বোনের বাড়িতে হামলা ও বোনকে আহত করার মিথ্যা নাটক সাজিয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি জাবেদ হোসেন বক্করকে দায়ী করে শুক্রবার বিকেলে সদর থানায় একটি অভিযোগ দেন।

বিষয়টি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কানে আসার পরপরই প্রতিবাদ জানায়। সেইসাথে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জেলা ছাত্রলীগ জেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও থানায় অবস্থান নেয়।

মুঠোফোনে ছাত্রলীগ সভাপতি জাবেদ হোসেন বক্কর বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণেই তাদের এই ভিত্তিহীন অভিযোগ। এ হামলার সাথে তিনি বা তার প্রিয় সংগঠন ছাত্রলীগের কোনো নেতা-কর্মী জড়িত নয়।