কলকাতায় ‘নায়করাজ রাজ্জাক’ সম্মাননা পেলেন ইলিয়াস কাঞ্চন

কলকাতায় ‘নায়করাজ রাজ্জাক’ সম্মাননা পেলেন ইলিয়াস কাঞ্চন

বাংলা চলচ্চিত্রে উত্তম কুমারের পর ‘মহানায়কের’ মুকুট উঠে নায়করাজ রাজ্জাকের মাথায়। ২০১৭ সালে এই মহানায়কের মৃত্যুর পরের বছরই তাকে শ্রদ্ধায় ভারতের ‘বেঙ্গল ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন চেম্বার অ্যান্ড কর্মাস’ মহানায়ক রাজ রাজ্জাকের নামে আজীবন সম্মাননা চালু করে। আর এই সম্মাননার তৃতীয় বছরের স্বীকৃতি পেয়ে তাই আবেগাপ্লুত বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা ও সামাজিক আন্দোলনকর্মী অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন।

ক্যারিয়ারে প্রায় সাড়ে তিনশ’ সিনেমায় অভিনয় ও সড়ক নিরাপত্তা নিয়ে আন্দোলনের জন্য এ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে তাকে।

কলকাতার ঐতিহ্যমণ্ডিত এক পাঁচতারা হোটেলে গতকাল শনিবার ৭ম বেঙ্গল ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন চেম্বার অব কমার্স (বিএফটিসি)-এর এই সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান হয়। সেখানে বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত তথা কলকাতার বিনোদন জগতের তারাকাও উপস্থিত ছিলেন।

সম্মাননা পেয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, আমি সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ জানাই। মানুষের কর্মের জন্যই আমরা। আমার দ্বারা মানুষের যেন ভালো কর্ম হোক-এটাই শুধু সৃষ্টিকর্তার কাছে আবেদন।

তিনি আরো বলেন, একে তো কাজের স্বীকৃতি, পাশাপাশি যে মানুষটির নামে এই জীবনকীর্তি সম্মাননা পেলাম, তিনি আমাকে সন্তানতুল্য মনে করতেন এবং আমায় বলেছিলেন, এক সময় আমার জায়গায় যদি কেউ আসে সে হবে ইলিয়াস। এতটাই উনি আমাকে ভালোবাসতেন। ওনার সন্তানও অভিনয় জগতে আছেন, কিন্তু সন্তানের জন্য এ কথা কখনও বলেননি। আমার জন্য বলেছিলেন। সেই মানুষটার নামে এই সম্মান নিতে পেরে ভালো লাগছে। এটা আমার ভাগ্য মনে করি।

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের আরেক চিত্রনায়ক আলমগীর। তিনি বলেন, আমি এখানে সম্মাননা দিয়েছি আবার নিয়েছি। তাই দেওয়া নেওয়াটা চলেই আসছে। আমি চাই এই দেওয়া নেওয়াটা দুই বাংলার সিনেমার মধ্যে হোক।

প্রসঙ্গত, রাজ্জাক নামাঙ্কিত লাইভ টাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কারে সম্মানিত এম এ আলমগীর। এদিন বিশিষ্ট অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায় পেয়েছেন হীরালাল জীবনকীর্তি সম্মাননা।