কিমের দেশে বিদেশি ভিডিও দেখলে ১৫ বছরের জেল, বড় চালানে মৃত্যুদণ্ড

সংগ্রহীত

কিমের দেশে বিদেশি ভিডিও দেখলে ১৫ বছরের জেল, বড় চালানে মৃত্যুদণ্ড

বিদেশি সংস্কৃতি নিয়ে কঠোর আইন করেছেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। তার এই আইনে সর্বোচ্চ ১৫ বছরের জেল ও মৃত্যুদণ্ডের বিধান করা হয়েছে। উত্তর কোরিয়ায় বিদেশি ভিডিও দেখা অবস্থায় ধরা পড়লে সর্বোচ্চ ১৫ বছরের জেল আর ভিডিও’র বড় চালানসহ ধরা পড়লে মৃত্যুদণ্ডের আইন পাশ হয়েছে উত্তর কোরিয়ায়!

দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন বেশ কিছু বিদেশি সংস্কৃতির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সম্প্রতি নতুন এই আইন পাশ করেন। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এমনটিই বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেউ যদি দক্ষিণ কোরিয়া, আমেরিকা কিংবা জাপানি কোন ভিডিও’র বড় চালানসহ ধরা পড়েন – তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হবে। কেউ যদি ওই বিদেশি ভিডিও দেখা অবস্থায় ধরা পড়েন, তবে তার শাস্তি ১৫ বছরের জেল। এমনকি কেউ যদি বিদেশি সিনেমা দেখে, বিদেশি পোশাক পরে, এমনকি গালিও দেয়- তবে তাকে কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হবে। 

এতে বিদেশি নাটক-সিনেমা বা অন্যান্য ভিডিও দেখা, পোশাক-পরিচ্ছদ বা চালচলনকে ‘প্রতিক্রিয়াশীল চিন্তা’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এই আইনকে কিমের বিনা হাতিয়ারের যুদ্ধ হিসেবে বর্ণনা করেছে।