কৃষ ফোর ঋত্বিকের বিপরীতে থাকতে পারে ক্যাটরিনা

সংগ্রহীত

কৃষ ফোর ঋত্বিকের বিপরীতে থাকতে পারে ক্যাটরিনা

২০০৬ সালের ২৩ জুন সুপারহিরোভিত্তিক সিনেমাটি মুক্তি পায় বলিউডের অন্যতম সফল ফ্র্যাঞ্চাইজি ‘কৃষ’। দেখতে দেখতে ১৫ বছর পার পরে ফেলেছে।  সিনেমাটি দেড় দশক পূর্তিতে ফ্র্যাঞ্চাইজির চার নম্বর কিস্তি ‘কৃষ ফোর’-এর নামটি সামনে নিয়ে এলেন ঋত্বিক।

এক রকম সিনেমাটির ঘোষণা দিয়ে কাজ শুরুর ইঙ্গিত দিলেন তিনি। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এ ছবিতে রাখা হবে ভিজ্যুয়াল এফেক্টস। গুঞ্জন রয়েছে, ‘কৃষ ফোর’ সিনেমায় ঋত্বিকের বিপরীতে প্রিয়াঙ্কা বা ক্যাটরিনাকে দেখা যেতে পারে।

বহুদিন ধরেই এই সিনেমা ঘিরে চলছিল জল্পনা। একাধিক সাক্ষাৎকারে ‘কৃষ ফোর’ যে তৈরি হবে সেকথা নিজেই জানিয়েছিলেন ঋত্বিক। বরাবরের মতো পরিচালক-প্রযোজক থাকবেন তার বাবা রাকেশ রোশন।

১৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে টুইট করে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন ঋত্বিক। সেখানে দেখা যাচ্ছে চিরাচরিত কালো রঙের লং কোট পরে আকাশপথে উড়ে যাচ্ছেন কৃষ। তার মাঝেই মুখ থেকে নিজের মুখোশটি খুলে ছুঁড়ে দেন তিনি।

ক্যাপশনে লেখেন, ‘অতীতে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। দেখা যাক, ভবিষ্যৎ কী নিয়ে আসে। কৃষ ফোর’। হ্যাশট্যাগ হিসেবে ‘ফিফটিন ইয়ারস অব কৃষ’ এবং ‘কৃষ ফোর’ শব্দেরও ব্যবহার করেছেন তিনি।

২০০৩ সালে মুক্তি পায় ঋত্বিক রোশন ও প্রীতি জিনতা অভিনীত ‘কই মিল গায়া’। ছবিটির ব্যাপক সাফল্যের পর ২০০৬ সালে নির্মিত হয় এর সিক্যুয়েল ‘কৃষ’। এতে যুক্ত হয় বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সাত বছর পর নির্মিত হয় চতুর্থ কিস্তি ‘কৃষ থ্রি’। এতেও ঋত্বিকের নায়িকা ছিলো ‘গুন্ডে’খ্যাত এই অভিনেত্রী।

এক সাক্ষাৎকারে রাকেশ রোশন জানিয়েছে, বেশ খরচসাপেক্ষ হবে ছবি। ভিজ্যুয়াল এফেক্টসের ব্যয় যাতে সাধ্যের মধ্যে রাখা যায়, সেটা মাথায় রাখতে হচ্ছে। এ ছাড়া দর্শকদেরও ভালো লাগতে হবে সেটা। সে জন্য আমরা আন্তর্জাতিক মানের একজন অ্যাকশন ডিরেক্টরের কথা ভাবছি। এমন কিছু করতে চাই, যা আগে বলিউডে হয়নি।