টি-টোয়েন্টি থেকে ছিটকে গেলেন মুশফিক রহিম

টি-টোয়েন্টি থেকে ছিটকে গেলেন মুশফিক রহিম
রাত পোহালেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। তার আগেই বড় দুঃসংবাদ টিম টাইগার্স শিবিরে।
প্রথম ম্যাচের আগের দিন বুধবার (২ মার্চ) অনুশীলনের সময় ডানহাতে চোট পেয়েছেন মুশফিকুর রহিম। গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, চোট পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মাঠ ছাড়েন তিনি। তার চোটের বিষয়ে সেই মুহূর্তে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।

যদিও তার খেলা নিয়ে শঙ্কা ঠিকই ছিল। শেষমেশ সেই আশঙ্কাই সত্যি হলো। প্রথম টি-টোয়েন্টি থেকে ছিটকেই গেছেন মুশফিক।

এদিকে প্রথম টি-টোয়েন্টির আগের দিন বুধবার (২ মার্চ) গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সদ্য সমাপ্ত বিপিএলে দারুণ পারফরম্যান্স দেখানো মুনিম শাহরিয়ার প্রথমবারের মতো সুযোগ পেয়েছেন টি-টোয়েন্টির স্কোয়াডে।

মাহমুদউল্লাহর কাছে আগামীকাল একাদশে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে জিজ্ঞেস করা হলে বলেন, মুনিমের অভিষেকের ভালো সুযোগ আছে কালকে। তবে এখনই আমি আর কিছু বলতে পারব না। আজকে আমরা উইকেটটা দেখলাম। এখন প্ল্যান করা হবে ব্যাটিং অর্ডার কিভাবে সাজানো যায়। তবে তার ভালো সুযোগ আছে।

এদিকে টপঅর্ডারের ব্যাটারদের ব্যর্থতা নিয়ে বলেন, শুধু টপ অর্ডারকে ব্লেম দিলে হবে না। কোনো দিন টপ অর্ডার ভালো করবে, আবার কোনো দিন মিডল অর্ডার। দল হিসেবে ভালো খেলতে হবে। এ ছাড়া উইকেট নিয়ে বলেন, আশা করি উইকেট ভালো হবে। কিছু টাইম স্পেন্ড করা গেলে এই উইকেট ব্যাটারদের জন্যও ভালো হবে।

তামিম প্রসঙ্গে বলেন, সে টি-টোয়েন্টি থেকে ছয় মাসের বিরতির যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটি একান্তই তার ব্যক্তিগত বিষয়। তবে গেল বিপিএলে দারুণ খেলেছে সে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের আশা জাগিয়েও শেষমেশ সিরিজ জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। টিম টাইগার্সের সামনে এবার মিশন টি-টোয়েন্টি। যদিও সংক্ষিপ্ত এ সংস্করণটিতে বাংলাদেশের চেয়ে কাগজে-কলমে ঢের শক্তিশালী রশিদ-নবীরা।

আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়েও বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আফগানিস্তান। তবে ৩ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজটিতে আফগানদের ছাড়িয়ে যাওয়ার দারুণ সুযোগ বাংলাদেশের সামনে। যদি সিরিজ জিততে পারে তবে র‌্যাংকিংয়ে সফরকারীদের ছাড়িয়ে যাবে মাহমুদউল্লাহ বাহিনী।

বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাস, মুনিম শাহরিয়ার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন, শেখ মেহেদী, ইয়াসির আলী চৌধুরী রাব্বি, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, নাসুম আহমেদ, শহিদুল ইসলাম এবং নাঈম শেখ।