ডিভোর্স না দিয়ে ইলিয়াসের বিয়ে, যা বললেন সুবাহ

ডিভোর্স না দিয়ে ইলিয়াসের বিয়ে, যা বললেন সুবাহ

ক্রিকেটার নাসিরের সাবেক প্রেমিকা আলোচিত মডেল ও অভিনেত্রী সুবাহ শাহ হুমায়রা। কিছু দিন পরপরই আলোচনার শীর্ষে থাকনে তিনি। এরইমধ্যে আবারো আলোচনায় তিনি। মাস খানেক আগে গুঞ্জন চাউর হয় সংগীতশিল্পী ইলিয়াস ও সুবাহর প্রেম।

গেল বৃহস্পতিবার সুবাহ নিজের ফেসবুকে গায়ক ইলিয়াসের সঙ্গে গায়ে হলুদের দুটি ছবি শেয়ার করেন। ক্যাপশনে লাভ ইমো ছাড়া কিছুই দেননি। পরে ইলিয়াস গণমাধ্যমকে বলেন, ‘গত ১ ডিসেম্বর আমাদের বিয়ে হয়েছে। তার আগে আমাদের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। আমাদের প্রেমের পরিণতি দেওয়ার জন্য বিয়ে করেছি। ’

জানা গেছে, বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষের পর রাজধানীর বনানীতে বাসা ভাড়া নিয়ে নতুন সংসার পেতেছেন ইলিয়াস-সুবাহ।

এদিকে আবারও নতুন করে আলোচনার জন্ম দিয়েছে ইলিয়াসের দ্বিতীয় স্ত্রী। তার অভিযোগ তাকে ডিভোর্স না দিয়েই অভিনেত্রী সুবাহকে বিয়ে করেছেন ইলিয়াস। সুইডেন থেকে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগের কথা জানিয়েছেন গায়কের দ্বিতীয় স্ত্রী মডেল কারিন নাজ। তার সেই অভিযোগের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন ইলিয়াসের বর্তমান স্ত্রী সুবাহ।

আজ রোববার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে ফেসবুকে এক দীর্ঘ স্ট্যাটাসে সুবাহ কারিন ইলিয়াসের স্ত্রী নয় বলেই দাবি করে বসেছেন। সেখানে তিনি এলোমেলো লেখায় তুলে ধরেন, ‘ডিভোর্স লেটার দেখেই জড়িয়ে ছিলাম আমি। তাও বৈধভাবে। ইভেন কারিন ও তার মা সুকন্যাকে দিপাকেও আমি নিজেই সব খুলে বলেছি যে আমরা দুজন বিয়ে করে ফেলবো। ইলিয়াস আমাকে বিয়ে করতে চায়, আমিও চাই। তাও ২ মাস আগে।

এখন যদি ওই মহিলারা অস্বীকার করেন যে সে কিছুই জানেন না! মানুষকে উল্টা পাল্টা মিথ্যা বলে তাহলে আমার কাছে প্রমাণ আছে যে ইনফর্ম করেছিলাম তাদেরকে অনেক আগেই। আর যদি কোনো পুরুষের ক্ষমতা থাকে বউ পালার সে একের অধিক বিয়ে করতে পারে। আর এমন তো না যে ডিভোর্স না দিয়ে বাচ্চা রেখে বিয়ে করেছে ইলিয়াস। ’

আর আমি তো জানি ইলিয়াসের সাথে কারিনই লিভ টুগেদার করেছিল। কারণ হলো ওই বিয়ের কোনো লিগেল কাবিন নামাই নেই!!! হাহাহা। ওই মেয়ে থাকে বিদেশে তিন বছর ধরে বাংলাদেশে আসে না শুধু মোবাইলে মোবাইলে কথা বললে কি সংসার হয়না কি?’

কারিন বাংলাদেশে একাধিক পুরুষের সঙ্গে অবৈধ প্রেমে লিপ্ত দাবি করে সুবাহ আরও বলেন, ‘ওই মেয়ে কারিন এবং তার মায়ের অনেক অবৈধ সম্পর্ক আছে বিদেশে এবং বাংলাদেশ এটাও আমি জানি। সে মেন্টালিভাবে পেরা দিতো অলওয়েজ। এটা ইলিয়াসের সার্কেলের সবাই জানে যে ওরা ম্যারেড লাইফে কখনো হ্যাপি ছিল না।

আর ঐ মেয়ে তিন বছর ধরে বাংলাদেশে আসে না ফিজিক্যাল রিলেশনও ছিল না। আমি তখন ইলিয়াসের ভালো বন্ধু ছিলাম। পরে আমাদের দুজনের ভালোলাগা থেকেই বিয়ের ডিসিশন নিয়ে আমরা ফ্যামিলিগতভাবে সবাইকে জানিয়ে যা করার করেছি। আমরা তো পাপ কিছু করিনি। ’

দুজনের ভক্ত-অনুরাগীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সুবাহ লিখেছেন, ‘আমাকে আর ইলিয়াসকে যদি আপনাদের ভালো না লাগে প্লিজ ইগনোর করতে পারেন। আমাদের দুজনকে ফলো করার দরকার নাই। লাইক দেওয়ার দরকার নাই। আমরা দুজন দুজনের সাথে ভালো আছি সংসার নিয়ে আলহামদুলিল্লাহ!’

সুবাহ আরও বলেন, ‘আমরা চেয়েছিলাম যখন ফাইনালি বড় করে অনুষ্ঠান করব তখন মিডিয়াকে বলবো। কিন্তু এতো অশান্তির জন্য তা করা সম্ভব হলো না। আমাদের জন্য দোয়া করবেন। বিনা কারণে হ্যারেসমেন্ট করলে মানহানি মামলা করতে বাধ্য হবো। আইন সবার জন্যই সমান। আমার কিছু বলার নেই আর। ’

প্রসঙ্গত, সুবাহ গায়ক ইলিয়াসের তৃতীয় স্ত্রী। এর আগে ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী নিশাত তাবাসসুমকে বিয়ে করেন ইলিয়াস। সেই বিয়ে বেশি দিন টেকেনি। এরপর দ্বিতীয়বারের মতো কারিন নাজ নামের এক মডেলের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ইলিয়াস। কারিন সুইডেনের স্টোকহোমে বসবাস করেন।

সে বিয়েও ভেঙে গেছে। সম্প্রতি নতুন করে সংসার শুরু করলেন সুবাহ’র সঙ্গে।