ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে দিশেহারা অস্ট্রেলিয়া

সংগ্রহীত

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে দিশেহারা অস্ট্রেলিয়া
গত বছর থেকেই করোনা মহামারি ঠেকিয়ে চলছিল অস্ট্রেলিয়া। বলা যায়, কোভিড-পরবর্তী দেশটি প্রায় স্বাভাবিক অবস্থাতেই ফিরে এসেছিল। সে দেশের জনগণদের রেস্টুরেন্ট, নাইটক্লাব, বিভিন্ন উৎসব, থিয়েটার ও টুরে যাওয়ারও কোনো বিধিনিষেধ ছিল না। এমনকি সীমান্তও উন্মুক্ত ছিল। খবর বিবিসির।
কিন্তু এবার অতিসংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে অস্ট্রেলিয়ার কয়েকটি রাজ্য আক্রান্ত হয়েছে। সোমবার (২৮ জুন) সিডনিতে ১২৮ জনের দেহে এই শক্তিশালী ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে।
এরপরই ভারতীয় ধরন ডেল্টার সংক্রমণ রোধে সিডনিসহ আশপাশের চারটি রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।
এ ছাড়া ডেল্টা পরিস্থিতিতে করণীয় নির্ধারণে সেদিন জরুরি বৈঠকে বসে দেশটির সরকার।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এরই মধ্যে সিডনির আশপাশের চারটি প্রতিবেশী অঙ্গরাজ্যে লকডাউন চলছে। এরপরও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এই সংক্রমণ সামনে আরও বাড়বে।
মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশ্বিক স্বাস্থ্যবিষয়ক প্রধান প্রফেসর ন্যান্সি বাক্সটার বলেন, ডেল্টা উচ্চমাত্রার সংক্রমক ধরন। ভ্যাকসিন নেওয়ার পরও এই ধরনে মানুষ আক্রান্ত হতে পারে। কিন্তু এই ধরন কীভাবে সংক্রমিত হচ্ছে তা ধরা যাচ্ছে না।

এদিকে অস্ট্রেলিয়াতে টিকা দেওয়ার হার খুবই কম। সংকট রয়েছে ভ্যাকসিনের। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৫ শতাংশ মানুষ দুই ডোজ টিকা নিশ্চিত করেছেন। তাই ডেল্টা ধরনে আক্রান্ত বেড়ে যেতে পারে।