দনবাসে যুদ্ধ শুরু, ক্রিমিনা দখল

দনবাসে যুদ্ধ শুরু, ক্রিমিনা দখল

কয়েকদিন থেকেই খবর আসছিল, ইউক্রেনের পূর্বদিকের অঞ্চল দনবাসে নতুন করে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া। গতকাল ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, দনবাসে যুদ্ধ শুরু হয়েছে। তীব্র হামলার মধ্যেই লুহানস্ক এলাকার ক্রিমিনা দখল করে নিয়েছে রুশ বাহিনী। দখলের আগে ব্যাপক হামলায় গোটা ক্রিমিনা প্রায় মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিয়েছে রুশ সেনারা। খবর বিবিসি, রয়টার্স ও আল জাজিরা।

বিবিসির খবরে বলা হয়, দনবাস দখল নিতে রুশ বাহিনী নতুন করে হামলা শুরু করেছে। অন্যদিকে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী প্রস্তুত রয়েছে বলে খবরে বলা হয়। পুরো ফ্রন্ট লাইনজুড়ে বিস্ফোরণ ও অন্যান্য অঞ্চলে হামলার মধ্য দিয়ে রুশ বাহিনী দনবাস যুদ্ধ শুরু করেছে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, রাশিয়া সোমবার পূর্বাঞ্চলের দনবাসের যুদ্ধ শুরু করেছে। রুশ সেনাদের একটি বড় অংশ এই যুদ্ধে অংশ নিয়েছে বলেও জানান তিনি। ভিডিও বার্তায় জেলেনস্কি বলেন, রাশিয়া যত সেনাই পাঠাক না কেন আমরা লড়াই চালিয়ে যাব।

ইউক্রেনের সংবাদমাধ্যমে দোনেৎস্কের ফ্রন্টলাইন বরাবর একের পর এক বিস্ফোণের খবর এসেছে। বেশকিছু শক্তিশালী বিস্ফোণের ঘটনাও ঘটেছে। এর পাশাপাশি মারাঙ্কা, সøাভিয়ানস্কা ও ক্রামাতোর্স্কে গোলাবর্ষণের খবর পাওয়া গেছে।

ইউক্রেনের জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা কাউন্সিলের মহাসচিব অলেক্সি দানিলভ জানিয়েছেন, সোমবার সকালে রাশিয়ার বাহিনীগুলো ‘দনেৎস্ক, লুহানস্ক ও খারকিভ অঞ্চলে প্রায় পুরো ফ্রন্ট লাইনজুড়ে’ ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা ভেদ করার চেষ্টা করেছে।

হামলার মধ্যেই লুহানস্কের ক্রিমিনা শহর দখল নিয়েছে রুশ বাহিনী। ক্রিমিনা শহরটি পূর্ব ইউক্রেনের লুহানস্ক অঞ্চলে অবস্থিত। শহর হাতছাড়া হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে লুহানস্কের আঞ্চলিক গভর্নর সার্গি গাইদে বলেন, ‘রবিবার থেকে সোমবার ক্রেমিনাতে রাতে বড় ধরনের হামলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ইউক্রেনের যে দুটি অঞ্চলকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করেছে সেগুলো হলো- দনেৎস্ক ও লুহানস্ক। আর এই দুটি অঞ্চলের সমন্বয়ে গঠিত দনবাস। মূলত এই দনবাস নিয়ন্ত্রণ নিতেই রাশিয়া যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছিল। এই অঞ্চলের কিছু এলাকা রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীরা নিয়ন্ত্রণ করছে। সম্প্রতি রাশিয়া জানিয়েছে, তারা কিয়েভ ও অন্যান্য স্থানে হামলা কমিয়ে দনবাসে হামলা জোরদার করবে। সেই ঘোষণা অনুযায়ী আক্রমণ শুরু হয়েছে।