দুই দশক পর প্রকাশ্যে শবনম

দুই দশক পর প্রকাশ্যে শবনম
নাম তার ঝর্ণা বসাক। তবে ঢালিউড ও ললিউডে তিনি শবনম নামেই পরিচিত। ১৯৬১ সালে মুস্তাফিজ পরিচালিত ‘হারানো দিন’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বড় পর্দায় পা রাখেন তিনি। চমৎকার অভিনয় দক্ষতা আর অসাধারণ ব্যক্তিত্বের কারণে শুধু বাংলাদেশের নয়, রাজত্ব করেছেন পাকিস্তানের দর্শকদের মনেও।
নাচের পুতুল’ খ্যাত এই মহাতারকা ৬০ থেকে ৮০’র দশক পর্যন্ত একাধারে সক্রিয় অভিনয় চর্চা করে গেছেন। সর্বশেষ আম্মাজান সিনেমায় তাকে কেন্দ্রীয় চরিত্রে দেখা গেছে। এরপর কেটে গেছে প্রায় দুই যুগ। দীর্ঘ এ সময়ে কোনো সিনেমায় দেখা যায়নি তাকে।

গত ২২ এপ্রিল চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আয়োজনে রাজধানীর মগবাজারের একটি কভেনশন হলে ইফতারে অংশ নিয়েছেন কিংবদন্তি অভিনেত্রী শবনম। প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আহ্বানে এমন কোনো আয়োজনে অংশ নিতে দেখা গেছে এ অভিনেত্রীকে। জানা গেছে, শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চনের অনুরোধেই তিনি এতে অংশ নেন। দীর্ঘ সময় চলচ্চিত্র থেকে দূরে থাকার পরেও তাকে সম্মান জানানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
চলচ্চিত্র থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেওয়া প্রসঙ্গে শবনম বলেন, আম্মাজান সিনেমার পর উপযুক্ত চরিত্রের অভাবে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াইনি। ইচ্ছে থাকলেও একই সঙ্গে মনের মতো চিত্রনাট্য ও শারীরিক অসুস্থতার কারণে আর কাজ করা হয়নি। চলচ্চিত্রের ইতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরার জন্য গণমাধ্যমকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সেদিন ইফতারে আরও অংশ নেন চিত্রনায়ক আলমগীর, রিয়াজ, ফেরদৌস, বাপ্পারাজ, অমিত হাসান, অনন্ত জলিল, বর্ষা, নিপুণ, কেয়া, সাইমন, নিরব, ইমনসহ আরও অনেকে।