দুপক্ষের ধাওয়া ও গুলিবর্ষণের পর আ.লীগের সম্মেলন পণ্ড

দুপক্ষের ধাওয়া ও গুলিবর্ষণের পর আ.লীগের সম্মেলন পণ্ড

কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীতে স্থানীয় দুটি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন নিয়ে দুপক্ষের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এতে সম্মেলন পণ্ড হয়ে যায়। এ ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

রোববার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে উপজেলার ধলঘাট ইউনিয়নের সরইতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন মিলনায়তনে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে ফোরকান আহমদ (৫৫), আবুল হাশেম (৩৫), মানিক উদ্দিন (৩২) ও বাদশাহ মিয়ার (২৫) নাম জানা গেছে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জানান, রোববার বিকেল পাঁচটার দিকে উপজেলার সরইতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নুরুল আলম। সম্মেলনে উদ্বোধক ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ব্রজগোপাল ঘোষ। ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি রহমত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম ও সাবেক চেয়ারম্যান আহসান উল্লাহ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে বক্তব্য দেন ধলঘাট ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আহসান উল্লাহ। এ সময় তিনি বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল হাসানসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেন। এই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে বর্তমান চেয়ারম্যান ও সাবেক চেয়ারম্যানের লোকজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হন। এরপর দুর্বৃত্তরা ফাঁকা গুলিবর্ষণ করলে সম্মেলন পণ্ড হয়ে যায়। পরে এই ঘটনায় স্থানীয় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আহসান উল্লাহ দায়ী করে স্থানীয় ৪ নম্বর ও ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেন।

মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবদুল হাই বলেন, স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।