ধর্মানুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে মেঘদল ব্যান্ডের বিরুদ্ধে মামলা

ধর্মানুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে মেঘদল ব্যান্ডের বিরুদ্ধে মামলা

মিউজিক ব্যান্ড ‘মেঘদল’-এর বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রায় ১৫ বছর আগের গানটি নিয়ে হওয়া মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

গত ২৮ অক্টোবর মেঘদল ব্যান্ডের সাত সদস্যের বিরুদ্ধে মামলাটির আবেদন করেন ইমরুল হাসান নামে এক আইনজীবী। রবিবার (৩১ অক্টোবর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মইনুল ইসলামের আদালত পিবিআইকে অভিযোগের বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, গত ২৬ অক্টোবর সকালে তিনি ইউটিউবে মেঘদলের একটি গান দেখতে পান। ওই গানে একটি দোয়া বা ইসলামি প্রার্থনা তথা তালবিয়া নিয়ে ইসলামে নিষিদ্ধ বাদ্য-বাজনা তথা আধুনিক যন্ত্র ব্যবহার করে বিকৃত সুরে গান আকারে অশ্রদ্ধার সঙ্গে এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মাতালের মতো করে গাওয়া হচ্ছে।

বাদী এজাহারে আরও উল্লেখ করেন, এ দোয়া বা প্রার্থনা প্রতিটি মুসলিম মানুষের কাছে বিশুদ্ধ ও পবিত্র। এটি সাধারণত হজের সময় বিনয় ও শ্রদ্ধাভক্তির সঙ্গে পাঠ করা হয়। গানের মধ্যে কালিমার অংশও গানের তালে পাঠ করা হয়েছে। ফলে গানটি তার ধর্মানুভূতিতে আঘাত হেনেছে।

প্রসঙ্গত, মামলার আসামি সাত জন মেঘদল ব্যান্ডের সদস্য— ভোকাল শিবু কুমার শিল ও মেজবা-উর রহমান সুমন, গিটারিস্ট-ভোকাল রাশিদ শরীফ শোয়েব, বেজ গিটারিস্ট এম জি কিবারিয়া, ড্রামবাদক আমজাদ হোসেন, কিবোর্ডিস্ট তানভির দাউদ রনি ও বাঁশিবাদক সৌরভ সরকার।