ধুনটে দুই নির্বাচনী কার্যালয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ

তবে আনোয়ারুল ইসলাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘শাহ আলম তাঁর কর্মী–সমর্থক দিয়ে তাঁদের নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছেন। তাঁরা আমার বাড়িতে গিয়ে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেছেন। তাঁরা আমার প্রচারের মাইক ভাঙচুর করেছেন। আমি এ বিষয়ে প্রশাসনের কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছি।

ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় কার্যালয়ের চেয়ার, টেবিল, পোস্টার ও কাঠের তৈরি নৌকার প্রতীক পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে
ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, নৌকার প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর ও অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত পুলিশের কাছে কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।প্রসঙ্গত, তৃতীয় ধাপে ২৮ নভেম্বর গোপালনগরসহ ধুনটের ১০টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।