নতুন রাজনৈতিক সংকটে আফগানিস্তান

নতুন রাজনৈতিক সংকটে আফগানিস্তান
তালেবান ক্ষমতায় আসার পর অর্থনৈতিক পতনের মুখে এগিয়ে যাচ্ছে আফগানিস্তান। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে সুইডেন ও পাকিস্তান। একই সঙ্গে অর্থনৈতিক পতন আফগানিস্তানকে নতুন করে রাজনৈতিক সংকটে ফেলতে পারে বলেও সতর্ক করেছে দেশগুলো।

এদিকে আফগানিস্তানে মানবিক সংকট মোকাবিলায় তালেবান সরকারের সঙ্গে যোগ দিতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে রেডক্রস।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের ক্ষমতা গ্রহণ করে তালেবান। এরপর দেশটি থেকে নিজেদের নাগরিকদের সরিয়ে নেয় বিদেশি রাষ্ট্রগুলো। একে একে কার্যক্রম বন্ধ করে আন্তর্জাতিক সংস্থাও। বন্ধ হয়ে যায় কয়েকশ’ কোটি মার্কিন ডলারের সহায়তা। এতে নানা ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হয় আফগানিস্তান।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) দেশটির চলমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে সুইডেন ও পাকিস্তান। সুইডেনের এক মন্ত্রী জানান, আফগানিস্তানে দ্রুত অর্থনৈতিক পতন হচ্ছে যা সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে বিকাশ করতে সাহায্য করবে।

অন্যদিকে, সংকট নিরসনে পশ্চিমাদেশগুলো আফগানিস্তানের যে অর্থ জব্দ করে রেখেছে তা ফেরত দেওয়ার দাবি জানান পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী। অন্যথায় নতুন করে দেশটিতে রাজনৈতিক সংকট বাড়বে বলে মত তাদের।

এদিকে তালেবান আসার পর থেকেই তীব্র মানবিক সংকটে ভুগছে আফগানিস্তান। এই সংকট শুধু ত্রাণ সংস্থাগুলো সামাল দিতে পারবে না বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক রেডক্রস। আর তাই দেশটির মানবিক সংকট নিরসনে তালেবান সরকারের সঙ্গে কাজ করতে বিশ্ব সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

প্রায় চার কোটি জনংসখ্যার দেশটিতে ৫০ লাখের বেশি মানুষ পুষ্টিহীনতায় ভুগছে। এমনকি এক কোটি ৮০ লাখ লোকের জরুরি ভিত্তিতে মানবিক সহায়তা প্রয়োজন বলে জানিয়েছে বিভিন্ন সংস্থা।

সূত্র: রয়টার্স