নরেন্দ্র মোদীকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

সংগ্রহীত

নরেন্দ্র মোদীকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল সকাল ১১ টায় বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকায় পৌঁছবেন মোদী। কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, দু্ই দিনের সফরে ঢাকা-দিল্লির মধ্যে পাঁচটি সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে। তবে দ্বিপাক্ষিক চাওয়া-পাওয়ার এসব হিসাবের উর্ধ্বে করোনাকালে মোদীর এই সফরকে বন্ধুত্বের অন্যতম নিদর্শন হিসেবেই দেখছে উভয় দেশ। 

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর আয়োজনে যোগ দিতে দুই দিনের সফরে বাংলাদেশে আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বাংলাদেশ-ভারত কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর হওয়ায় মোদীর এই সফর আরো তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে উভয় দেশের কাছে।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, মোদীর সফরে সমুদ্র অর্থনীতি, অভিন্ন ছয় নদীর পানি বন্টন, শিক্ষা ও পরিবেশ সুরক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়াতে পাঁচটি এমওইউ সই হতে পারে। তবে সে’সব হিসাব-নিকাশের উর্ধ্বে বন্ধুত্বের বন্ধনকেই সামনে আনছে ঢাকা।

নিউজ টোয়েন্টিফোরকে দেয়া একান্ত সাক্ষাতকারে মোদীর বাংলাদেশে সফরের তাৎপর্য তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

উভয় দেশের কূটনৈতিক ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষকদের মতে, ঐতিহাসিক উদযাপনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই সফর দুই দেশের বন্ধুত্বে আরো শক্তিশালী করবে।

ঢাকা-দিল্লী দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বন্ধুত্বের দাবি নিয়ে অমিমাংসিত বিষয়গুলো আলোচনার সুযোগ কাজে লাগাতে পারেন দু্ই দেশের প্রধানমন্ত্রী- বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

ঢাকার কর্মসূচিরর বাইরে সাতক্ষীরা ও গোপালগঞ্জের মতুয়া সম্প্রদায়ের মন্দির পরিদর্শন করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।