নোয়াখালীতে ইউনিয়ন পরিষদ ইউপি নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা-অগ্নিসংযোগ

নোয়াখালীতে ইউনিয়ন পরিষদ ইউপি নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা-অগ্নিসংযোগ

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন ঘিরে প্রায় প্রতিদিনই বাড়ছে সংঘাত। পাল্টাপাল্টি হামলা, মমলা অব্যাহত।  চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী রবিবার।
এদিকে নোয়াখালী সদরের আন্ডারচর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর একটি নির্বাচনী ক্যাম্পে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অন্যদিকে, বিদ্রোহী প্রার্থী আলী হায়দার বকসীর অফিসে হামলা ভাঙচুরের পাল্টা অভিযোগ করেন তিনি। এর প্রতিবাদে তিনি নৌকা প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেন।

সোমবার ভোর রাতে আন্ডারচর ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের চৌরাস্তা এলাকায় নৌকার নির্বাচনী অফিসে অগ্নি সংযোগের অভিযোগ করেন সমর্থকরা। এ ঘটনার প্রতিবাদে একই দিন দুপুরে চৌরাস্তা বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থকরা।

নৌকার প্রার্থী আব্দুর রব বলেন, ‘ আমি দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচনী মাঠে আসার পর আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের আলী হায়দার বকশির লোকজন আমার কর্মী সমর্থকদের হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে।

তিনি বলেন, চৌরাস্তা বাজারের সকল মানুষ বকশি বাহিনীর কাছে জিম্মি। তার সমর্থকরা আগুন দিয়েছে।

চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীকের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী আলী হায়দার বকশি পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, ‘নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আব্দুর রব জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে আবদুর রব পরিকল্পিতভাবে তার লোকজন দিয়ে গত রাতে অন্ধকারে ওই তাবু এবং পোস্টারে আগুন লাগিয়ে আমি এবং আমার কর্মীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি তদন্তপূর্বক এই ঘটনার বিচার দাবি করছি। ‘

নৌকার প্রার্থী আবদুর রবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে সোমবার দুপুরে চৌরাস্তা বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে আনারস প্রতীকের কর্মী সমর্থকরা।

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাহেদ উদ্দিন বলেন, নৌকার প্রার্থী তাঁর নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন দেওয়ার বিষয়টি আমাকে অবহিত করেছে।  খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। লিখিত অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে।