পরীক্ষা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে সারাদেশে বিক্ষোভ

সংগ্রহীত

পরীক্ষা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে সারাদেশে বিক্ষোভ

করোনা জীবন থেকে কেড়ে নিয়েছে জীবনের প্রায় একটি বছর। এই সময়কে আর দীর্ঘ করতে চান না শিক্ষার্থীরা। আর তাই চলমান পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছেন দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসে প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে তারা এখনই পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানান। এদিকে একই দাবিতে সড়কে নেমে বিক্ষোভ করেছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও।

আগামী ২৪ মে থেকে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা শুরুর সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করছেন। ক্লাস-পরীক্ষা অবিলম্বে চালুর দাবি নিয়ে ক্যাম্পাসের শহীদ মিনার এলাকায় সমাবেশের আয়োজন করেন। একপর্যায়ে অবস্থান নেন উপাচার্য ভবনের সামনে।

এ সময় তারা বলেন, পরীক্ষা শুরুর আগে দুবার অঙ্গীকারনামায় সাইন দিয়েছি। আমরা নিজেরাই আমাদের নিজেদের সব দায়িত্ব নিয়েছি। আর মাত্র ৩টি পরীক্ষা বাকি আছে। এ সময় পরীক্ষা বন্ধ করে দেওয়া কোনো সঠিক সিদ্ধান্ত নয়। 

প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা দেন ময়মনসিংহে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। তাদের দাবি, পরীক্ষা নেয়ার কথা বলে তাদের ক্যাম্পাসে আনা হলেও পদক্ষেপ নেননি কর্তৃপক্ষ।

নগরীর প্যারিস রোডে মানববন্ধন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও। তারা বলেন, পরীক্ষা না হওয়ায় নির্দিষ্ট সময়ে পড়ালেখা শেষ না হওয়া ও চাকরির আবেদন জটিলতাসহ নানা দিকে পিছিয়ে পড়ছেন তারা।

এদিকে পহেলা মার্চের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। এর আগে প্রশাসনের আশ্বাসে হল ছাড়েন আন্দোলনরতরা।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরীক্ষা স্থগিতে প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন বরিশালের ব্রজমোহন কলেজের ছাত্রছাত্রীরা। সড়ক অবরোধ করায় যান চলাচল বন্ধ থাকে বেশ কিছুক্ষণ।

পরীক্ষা স্থগিত রাখার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মাদারীপুর সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরাও রাস্তায় বিক্ষোভ করেন। প্রশাসনের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নিলেও ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেন তারা।