পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ের নিরাপত্তা পাবেন কামিন্সরা

পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ের নিরাপত্তা পাবেন কামিন্সরা
অনেক আলোচনা-সমালোচনার পর শেষ পর্যন্ত দীর্ঘ দুই যুগের বেশি সময় পর পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। আগামী মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত তিনটি করে টেস্ট ও ওয়ানডে এবং একটি টি-টোয়েন্টি খেলবে দুই দল। তবে সিরিজ নির্ধারণী হলেও অজিদের মাঝে নিরাপত্তার ভয় কাজ করছে এখনো। তবে অস্ট্রেলিয়ার ফাস্ট বোলার কাটিং জানান, পাকিস্তানে নিরাপত্তা নিয়ে ভাবতে হবে না কামিন্সদের।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর পাকিস্তান দল বাংলাদেশে এসে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে গেছে। এরপর ক্যারিবিয়রা পাকিস্তানে গিয়ে খেলেছে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। আর সেই সিরিজের ভরসায় অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তানে গিয়ে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলার।

আন্তর্জাতিক দল যত বেশি পাকিস্তানে এসে সিরিজ খেলবে, নিয়মিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের সম্ভাবনা তত বাড়বে পাকিস্তানে। সে জন্য পিসিবি চাইছে বেশি বেশি করে নিজ দেশে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার।

তবে সব দলই একটি অজুহাত দেখিয়ে পাকিস্তানে সফর করে না। তা হচ্ছে নিরাপত্তা। এর আগে ইংল্যান্ড এবং নিউজিলান্ডও পাকিস্তান সফর বাতিল করে নিরাপত্তার জন্য। তবে পিএসএল খেলতে যাওয়া অজি অলরাউন্ডার বেন কাটিং মনে করেন পাকিস্তানে নিরাপত্তাব্যবস্থা অসাধারণ।

পিএসএল খেলতে যাওয়া কাটিং জানান, ‘এখানকার নিরাপত্তাব্যবস্থা অসাধারণ। এ কারণেই আপনি এখানে নিরাপদ মনে করবেন। পাকিস্তানে বিমানবন্দরে নামার পর থেকে দেশে ফিরে যাওয়ার বিমানে ওঠার আগপর্যন্ত পর্যাপ্ত নিরাপত্তা পাবেন আপনি।’
এ ছাড়াও আসন্ন পাকিস্তান সিরিজের জন্য কামিন্সদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না বলেই মনে করেন কাটিং। কাটিং বলেন, ‘এখানে খেলোয়াড়দের যে নিরাপত্তা দেওয়া হয়, তা প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তার পর্যায়ের। আমাদের প্রধানমন্ত্রী যদি পাকিস্তান সফর করতেন, তিনিও একই পর্যায়ের নিরাপত্তা পাবেন, যেমন নিরাপত্তা আমাদের টেস্ট দল পাবে।’
পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার তিন টেস্ট ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি শুরু হবে ৪ মার্চ থেকে। মার্চের শেষদিকে মাঠে গড়াবে ওয়ানডে সিরিজ। ২৯ ও ৩১ মার্চ এবং ২ এপ্রিল তিনটি ওয়ানডেই অনুষ্ঠিত হবে রাওয়ালপিন্ডিতে।
পাকিস্তানের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া দল
প্যাট কামিন্স (অধিনায়ক), অ্যাস্টন অ্যাগার, স্কট বোল্যান্ড, অ্যালেক্স ক্যারি, ক্যামেরুন গ্রিন, মারকাস হ্যারিস, জশ হ্যাজলউড, ট্রেভাস হেড, জশ ইংলিশ, উসমান খাজা, মানাস ল্যাবুশেন, নেথান লায়ন, মিচেল মার্শ, মাইকেল নেসার, স্টিভ স্মিথ (সহ-অধিনায়ক), মিচেল স্টার্ক, মিচেল সোয়াপ্সন, ডেভিড ওয়ার্নার।