পাপন-সুজনের প্রশংসা কেন? কড়া জবাব সাকিবের

সংগ্রহীত

পাপন-সুজনের প্রশংসা কেন? কড়া জবাব সাকিবের

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কর্মকর্তাদের নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে আবারও আলোচনায় সাকিব আল হাসান। ফেসবুকে এক লাইভ অনুষ্ঠানে বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার বিসিবি পরিচালক আকরাম খানকে নিয়ে সমালোচনা করেছেন। পাশাপাশি বর্তমান সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনেরও প্রশংসাও করেছেন তিনি।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এক সাক্ষাৎকারে ক্রিকেট অপারেশনসের চেয়ারম্যান হিসেবে আকরামের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন সাকিব। তিনি বলেন, ‘ক্রিকেট অপারেশনস জাতীয় দল নিয়ে কী কাজ করেছে, কী প্ল্যান করছে? তাদের ব্যর্থতা বা সাফল্য কী? আকরাম ভাই তো অনেক গাটসি (সাহসী) মানুষ, এর আগে উনি পদত্যাগও করেছেন। ব্যর্থতার দায় তো তার ওপরও পড়ে, নাকি?’অন্যদিকে বিসিবি প্রধানের প্রশংসা করে সাকিব বলেন, ‘আমরা সবসময় পাপন ভাইকে দোষ দেই। পাপন ভাই আমার কাছে মনে হয় যত বেশি চিন্তা করে, ওত বেশি চিন্তা খুব কম মানুষই আছে ক্রিকেট বোর্ডে করে। সুজন ভাইও করে। তার ফলটাও আমরা দেখতে পাচ্ছি। যুবদল ভালো করছে। এই দু’জন ছাড়া ক্রেডিট দেয়ার মানুষ তো দেখি না, যারা আসলে ক্রিকেটটা নিয়ে ভাবছে।’

এমন সব মন্তব্যের প্রেক্ষিতে সিনিয়র সাংবাদিক উৎপল শুভ্র সাকিবের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলেছেন। ফোনআলাপটি তুলে ধরেছেন নিজের ওয়েবসাইটে।

সাকিবের কাছে প্রশ্ন রাখা হয়, ‘আপনি যে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের খুব প্রশংসা করলেন; কেউ যদি বলে, আপনি এটা বলেছেন আসল জায়গাটা ঠিক রাখার উদ্দেশ্যে। যাতে আপনার শাস্তি-টাস্তি না হয়।’

জবাবে বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক বলেন, ‘আমি কাউকে খুশি করতে কিছু বানিয়ে বলতে পারি না। আমি পাপন ভাই আর সুজন ভাইয়ের প্রশংসা করেছি। সুজন ভাই ডেভেলপমেন্টে ভালো কাজ করছেন। এই যে আন্ডার নাইনটিন টিমটা ওয়ার্ল্ড কাপ জিতল, ওদের দেখাশোনা তো সুজন ভাই-ই করেছেন। আলাদা করে রেখেছেন, অনেকগুলো ট্যুরে পাঠিয়েছেন। ২০টার জায়গায় ৫টা ট্যুর করলে ওরা হয়তো ওয়ার্ল্ড কাপ জিততে পারত না।’

ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতির প্রসঙ্গ টেনে সাকিব বলেন, ‘পাপন ভাইয়ের সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে আমার যে পরিমাণ কথা হয়, তাতে আমি বুঝতে পারি, তার ভালো কিছু করার ইচ্ছা আছে। সবারই লিমিটেশন থাকে, তবে ইচ্ছাটাই হলো আসল। আমরা প্লেয়ারদের ক্ষেত্রে বলি না যে, ইনটেন্টটা ঠিক আছে কি না। পাপন ভাইয়ের ইনটেনশনটা ভালো। তিনি ক্রিকেটে যে পরিমাণ সময় দেন, এ থেকেই তো ওনার সদিচ্ছাটা বোঝা যায়। ওনার সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান কথা থেকে বলতে পারি, উনি ক্রিকেটটাও ভালো বোঝেন। ওনার সঙ্গে আমার টিম নিয়ে অনেক চিন্তাই মিলে যায়।’