পুত্রবধূর অত্যাচারে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা শাশুড়ি

পুত্রবধূর অত্যাচারে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা শাশুড়ি

পুত্রবধূর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক বৃদ্ধা শাশুড়ি। ওই বৃদ্ধার নাম কৃষ্ণাদেবী বন্দ্যোপাধ্যায়। এ ঘটনায় পুত্রবধূর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনায়।

আত্মহত্যা করা কৃষ্ণাদেবী উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহরের বাসিন্দা। তার ছেলে কার্তিক ও পুত্রবধূ নম্রতা।

অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে পুত্রবধূ নম্রতা শাশুড়ি কৃষ্ণাদেবীর ওপর অত্যাচার চালিয়ে আসছে। প্রায়দিনই মারধর করতো, খেতে দিতো না তাকে। তা সত্ত্বেও মুখ বুজে ছেলের সংসারে ছিলেন তিনি। কিন্তু ক্রমশ অত্যাচারের মাত্রা বাড়ছিল।

প্রতিবেশীরা জানান, পুত্রবধূর অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে সোমবার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন কৃষ্ণাদেবী। কৃষ্ণাদেবীর আর্তনাদ শুনে ছুটে যান স্থানীয়রা। দগ্ধাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কল্যাণী এমজেএন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে বীজপুর থানার পুলিশ। এরই মধ্যে অভিযুক্ত নম্রতাকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় কৃষ্ণাদেবীর মেয়ে বউদির বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, পুত্রবধূর অত্যাচার সইতে না পেরে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কৃষ্ণা। তবে, এখনো এ বিষয়ে নম্রতা ও তার স্বামীর প্রতিক্রিয়া মেলেনি।