বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে চারটি সমঝোতা স্মারক সই

সংগ্রহীত

বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে চারটি সমঝোতা স্মারক সই

বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে সমন্বিত সহযোগিতাসহ চারটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর তেজগাঁও কার্যালয়ে সফররত মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহ্ এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে সমঝোতা স্মারকগুলো সই হয়।

দুই দেশের মধ্যে সমন্বিত সহযোগিতা, মৎস্য খাতের সহযোগিতা এবং সাংস্কৃতিক বিনিময় সংক্রান্ত এই সমঝোতা স্মারক সই করেন দুই দেশের মন্ত্রী ও সচিব।

মৎস্য ও পেলেজিক ফিশিংয়ের ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ও মালদ্বীপের অর্থনৈতিক উন্নয়নমন্ত্রী স্বাক্ষর করেন।

পাশাপাশি ২০২২-২০২৫ পর্যন্ত সাংস্কৃতিক বিনিময়ে সহযোগিতার জন্য সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ হাসান ও মালদ্বীপের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল্লাহ শহিদ সই করেন।

এর আগে, ঢাকা সফররত মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও একাধিক মন্ত্রী ও সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তারা অংশ নেন। সফররত রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফুল দিয়ে তাঁকে স্বাগত জানান।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে গতকাল বুধবার সস্ত্রীক ঢাকায় আসেন মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ সলিহ্।

এরপর মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে যান এবং স্বাধীনতার জন্য আত্মত্যাগকারী বীর শহীদদের সম্মান জানান। সাভার থেকে ফিরে তিনি ঢাকার ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল বিকেলে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে  সাক্ষাৎ করেন। এরপর জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট।