বিএনপির ১৫ নেতাকর্মীর দুই দিনের রিমান্ড

বিএনপির ১৫ নেতাকর্মীর দুই দিনের রিমান্ড

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বিএনপি-ছাত্রদলের ১৫ নেতাকর্মীর দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আশেক ইমাম শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যাদের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে তারা হলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান, জিহাদুল হক রঞ্জু ও ঝলক মিয়া, সূর্যসেন হল শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু হান্নান তালুকদার, ঢাবি শাখার সাবেক সহ-সম্পাদক আল ইমরান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার কর্মী শাহাদাত হোসেন, বিএনপি কর্মী সজিব, ছাত্রদলের সাবেক নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুবদলের শেরে বাংলা নগর থানার সভাপতি আতিকুর রহমান অপু, যুবদল কর্মী হাসান আলী, ছাত্রদল কর্মী মুতাছিম বিল্লাহ, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা গাজী সুলতান জুয়েল, সাবেক ছাত্রদল নেতা রেজাউল ইসলাম প্রিন্স, বিএনপি কর্মী শুক্কুর ও আবুল হোসেন হাওলাদার আশিক।

এর আগে বিএনপি’র ৫০ নেতাকর্মীকে আদালতে হাজির করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পল্টন মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মনজুরুল হাসান খান আসামিদের মধ্যে ১৫ জনের বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। একইসাথে মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বাকি ৩৫ জনকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। তবে প্রবীণ আইনজীবী আব্দুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় রিমান্ড শুনানি মুলতবি রাখার আবেদন করেন ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হজরত আলী। আদালত রিমান্ড শুনানির জন্য এ দিন ধার্য করে ৫০ আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত মঙ্গলবার সারাদেশে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে বিএনপির উদ্দ্যোগে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সম্প্রীতি মিছিলের আয়োজন করে দলটি। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মিছিল নিয়ে বের হলে নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়।

এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫০ জনকে গ্রেফতার করে। পরে পুলিশ মামলা দায়ের করে। মামলায় যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুল ইসলাম নীরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকুসহ ৯৭ জনকে আসামি করা হয়েছে।