বুস্টার ডোজে মহামারি আরও বাড়বে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান

বুস্টার ডোজে মহামারি আরও বাড়বে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেড্রোস আধানম গেব্রেয়াসিস সতর্ক করে বলেছেন, কোভিড টিকার বুস্টার কার্যক্রম বিশ্বব্যাপী মহামারির একটি নিশ্চিত সমাপ্তি আনবে না। বরং এটি মহামারিকে আরও দীর্ঘায়িত করবে।

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, টিকার অসম বণ্টনের কারণে দরিদ্র দেশগুলো তাদের জনসংখ্যাকে টিকা দেওয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। তারা টিকা গণহারে টিকা কার্যক্রম চালাতে পারছে না।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা ১৬ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ধরন ছড়িয়ে পড়ায় বুস্টার ডোজ নেওয়ার অনুরোধ করেছে। অথচ অনেক দেশ এখনও তাদের বেশির ভাগ নাগরিককে কোভিড টিকার প্রাথমিক ডোজের আওতায় আনতে পারেনি।

ধনী দেশগুলো ভাবছে, বুস্টার ডোজ কার্যক্রমকে করোনাভাইরাসের অতি দ্রুত বিস্তারকারী ওমিক্রন রোধের সমাধান হিসেবে বিবেচনা করছে। এ প্রসঙ্গে বুধবার একটি মিডিয়া ব্রিফিংয়ে টেড্রোস বলেছেন, এ রকম ধারণার ফল হিতে বিপরীত হতে পারে।

তিনি বলেন, ঢালাও বুস্টার কার্যক্রম সম্ভবত মহামারির সমাপ্তি না টেনে বরং তা দীর্ঘায়িত করতে পারে। যেসব দেশে ইতিমধ্যেই উচ্চমাত্রার টিকা দেওয়ার সুবিধা রয়েছে, সেসব দেশে সরবরাহ বাড়িয়ে দেওয়ায় ভাইরাসটিকে অন্যত্র ছড়িয়ে পড়ার এবং রূপান্তরের আরও সুযোগ দিচ্ছে।

টেড্রোস জোর দিয়ে বলেন, টিকা প্রদানে বৈষম্যের কারণে মহামারি চলতে থাকবে। যেসব দেশে টিকার প্রাথমিক ডোজ কম পাওয়া যাবে তারা ভাইরাসের মিউট্যান্ট রূপের প্রজনন ক্ষেত্র হয়ে উঠবে।

ওমিক্রন দক্ষিণ আফ্রিকার এইচআইভি রোগীর থেকে উদ্ভূত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। অথচ সেখানকার জনসংখ্যার মাত্র ২৬ শতাংশ মানুষকে সম্পূর্ণরূপে টিকা দেওয়া হয়েছে।