ব্রিজ থাকলেও নেই সংযোগ সড়ক

ব্রিজ থাকলেও নেই সংযোগ সড়ক

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের ঘাটাবাড়ি এলাকায় রূপসী-পাকুরতলা সড়কের দুই পাশের সংযোগ সড়ক না থাকায় জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিগত দুই বছর আগে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অর্থায়নে ৩০ লাখ ৭৭ হাজার ৬৫৭ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট কংক্রিট ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। এরপর থেকে ওই ব্রিজের দু‘পাশের সংযোগ সড়ক না থাকায় জালালপুর ইউনিয়নের জালালপুর, ঘাটাবাড়ি, পাকুরতলা, বাঐখোলা ও কুঠিরপাড়া গ্রামের সাত সহস্রাধিক মানুষ প্রতিদিন ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো বেয়ে ব্রিজটি পাড় হচ্ছে।

এ বিষয়ে পাকুরতলা গ্রামের মানুষেরা জানান, দুই বছর ধরে তাদের যাতায়াতে চরম কষ্ট এবং ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে বৃদ্ধ ও স্কুলগামী শিশুদের যাতায়াতে বেশি কষ্ট হচ্ছে।

তারা আরো বলেন, ব্রিজটি নির্মাণের পর দায়সারা গোছের ভাবে সামান্য মাটি ফেলা হয়। ফলে বর্ষার শুরুতেই তা ভেঙ্গে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এরপর স্থানীয় এলাকাবাসী ব্রিজের দু‘পাশে বাঁশের সাঁকো তৈরি করে পারাপারের ব্যবস্থা করে। তবে, ব্রিজে সংযোগ সড়ক না থাকায় এ সড়ক দিয়ে সরাসরি কোন যানবহন চলাচল করতে পারে না। ধান, চাল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পরিবহনে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। তারা অবিলম্বে ব্রিজটির দু‘পাশে সংযোগ সড়ক নির্মাণের দাবি জানান।

এ বিষয়ে জালালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ এবং শাহজাদপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ব্রিজটি নির্মাণের পর মাটি ভরাট করা হয়েছিল। কিন্তু বন্যার পানির তীব্র চাপে তা ভেঙ্গে গেছে। ফলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। পানি সরে গেলে আবারও মাটিভরাট করে চলাচলের উপযোগী করা হবে।