ভূমিহীনদের ঘর নিয়ে নয়-ছয়ে বিএনপির উদ্বেগ

সংগ্রহীত

ভূমিহীনদের ঘর নিয়ে নয়-ছয়ে বিএনপির উদ্বেগ

গরিব ও ভূমিহীন মানুষের ঘর নিয়ে যারা দুর্নীতি করে ছে তাদের অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি। শনিবার (১০ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে এ দাবি জানান বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও দপ্তরের দায়িত্বে থাকা নেতা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রিন্স বলেন, ‘জনপ্রিয় একটি প্রবাদ আছে-‘সর্বাঙ্গে ব্যথা, ওষুধ দিব কোথা’। বর্তমান সরকারের আমলে দুর্নীতি, লুটপাট, স্বেচ্ছাচারিতা, দলীয়করণ, আত্মীয়করণ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, এই প্রবাদটি বর্তমানে বাংলাদেশের বেলায় অতি প্রযোজ্য।

তিনি আরও বলেন, মেগা প্রজেক্ট থেকে শুরু করে গ্রাম-গঞ্জের ছোট প্রজেক্ট-সব জায়গায় দুর্নীতি আর লুটপাটের মহোৎসব চলছে, এ যেন লুটপাটের স্বর্গরাজ্য। এমনকি ভূমিহীন গরিব মানুষের জন্য নির্মিত ঘর যা ঢাক-ঢোল পিটিয়ে ‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার’ হিসেবে উল্লেখ করা হচ্ছে, সেই ঘর নিয়েও যে সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাট, স্বেচ্ছাচারিতা ও দলীয়করণ হয়েছে তা সংবাদমাধ্যমের কল্যাণে জাতি তা জানতে পেরেছে। সেই ঘরগুলো হস্তান্তরের আগেই বা হস্তান্তরের পর দু’তিন মাস যেতে না যেতেই যেভাবে ধসে পড়তে দেখা গেল তাতেই প্রমাণিত হয়-দেশে উন্নয়নের নামে হরিলুট চলছে।

এছাড়া ভূমিহীনদের ঘর পুনঃনির্মাণের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি গরীব ও ভূমিহীন মানুষের ঘর নিয়ে যারা মহাদুর্নীতি, লুটপাট ও চাঁদাবাজি করেছে তাদেরকে অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে বিচার দাবি করছে এবং ক্ষতিগ্রস্ত গরিব ও ভূমিহীনদের ঘর পুনঃনির্মাণ করে পুনর্বাসনের দাবি জানাচ্ছে।