মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে দীঘি

সংগ্রহীত

মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে দীঘি

ঢাকাই চলচ্চিত্রের নবাগত নায়িকা প্রার্থনা ফারদীন দীঘি। হতাশায় ভুগছেন এই অভিনেত্রী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে একথা জানিয়েছেন তিনি। বর্তমানে ফেসবুক ও মোবাইল ফোন থেকে দূরে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

নায়িকা প্রার্থনা ফারদীন দীঘি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমি কারও মনোযোগ পাওয়ার জন্য এই লেখাটা লিখছি না। শুধু মাত্র আমার মনের অবস্থা ভাগাভাগি করে নিচ্ছি আপনাদের সাথে। আজ আমি আমার মানসিক অবস্থা নিয়ে কথা বলব। হতাশা, শব্দটা শুনে আপনার যেমন লাগছে, এই শব্দটা ততটাই হতাশার। এটি আসলেই জোরে আঘাত করে আর মনটা ভেঙেচুরে দেয়। আমি বরাবরই এমন একটি মানুষ, যে প্রতিনিয়ত স্বপ্ন দেখতে পছন্দ করে। সম্পূর্ণ আবেগ নিয়ে জীবনকে উপভোগ করে। পেছনে কথা বলা নিয়ে আমি কখনই বিরক্ত হইনি। তবে এই সময়টা অভিশপ্ত। যা আমাকে মানসিকভাবে ভেঙেচুরে ফেলেছে।’

প্রতিনিয়ত বুলিং আর ট্রলিংয়ের শিকার হয়ে মন ভেঙে গেছে দীঘির। তিনি লিখেছেন, ‘আমি ভেতরে, বাইরে পুরোদস্তুর একটা ইতিবাচক মানুষ। আমি কখনই ভাবিনি যে আমি এভাবে মানুষের ট্রল, ব্যঙ্গ, উপহাস আর বিতর্কের শিকার হব। আমি সব সময় এগুলোকে এড়িয়ে মানসিকভাবে শক্ত আর আত্মবিশ্বাসী থাকতে চেয়েছি। কিন্তু আর পারছি না। আপাতত আমি কারও ফোন ধরছি না। মেসেজের উত্তর দিচ্ছি না।’

বর্তমান অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটু সময় নিয়ে আবার স্বাভাবিক জীবনে পথচলা শুরু হবে বলেও কথা দিয়েছেন নায়িকা দীঘি। পোস্টটির শেষে দীঘি লিখেছেন, ‘হয়তো কিছু মানুষ আমার এ রকম আচরণে বিরক্ত হচ্ছে, ভুল বুঝছে, আমার ওপর রাগও হচ্ছে। তবে আমার বিশ্বাস, সব ঠিক হয়ে যাবে।

আমি সবকিছু পেছনে ফেলে আবার আমার মতো করে ফিরব। আমি একটু সময় চাই। এই সময়টুকু আমাকে আমার মতো থাকতে দিন। শুরু থেকেই আমার পরিবার, বন্ধু আর কাছের মানুষদের আমার পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ। আমাকে আপনাদের প্রার্থনায় রাখবেন। ভালোবাসা জানবেন।’