মাহারাজের হ্যাটট্রিক, ক্যারিবীয়দের হোয়াইটওয়াশ করল দ. আফ্রিকা

সংগ্রহীত

মাহারাজের হ্যাটট্রিক, ক্যারিবীয়দের হোয়াইটওয়াশ করল দ. আফ্রিকা

প্রথম টেস্টে বাজে ব্যাটিংয়ে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টেও ওই ব্যর্থতা থেকে বের হতে পারল না দলটি। ফলে কপালে হারই জুটল স্বাগতিকদের। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হোয়াইটওয়াশ হলো ক্যারিবীয়রা।

সোমবার সেন্ট লুসিয়ায় দ্বিতীয় টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজ হেরেছে ১৫৮ রানের ব্যবধানে। ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জয় প্রোটিয়াদের। প্রায় চার বছর পর ঘরের বাইরে কোনো টেস্ট সিরিজ জিতল দক্ষিণ আফ্রিকা। ম্যাচ সেরা প্রোটিয়া পেসার ক্যাগেোস রাবাদা।

প্রথম ইনিংসে ২৯৮ রান করা দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে গুটিয়ে দেয় মাত্র ১৪৯ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে অবশ্য ক্যারীবিয়দের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে মাত্র ১৭৪ রানে অল আউট প্রোটিয়া শিবির। তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে জয়ের টার্গেট দাঁড়ায় ৩২৪ রান। সে লক্ষ্যে খেলতে নেমে রোববার তৃতীয় দিন শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তুলতে পারে বিনা উইকেটে ১৫ রান। সোমবার চতুর্থ দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অল আউট ১৬৫ রানে।

চতুর্থ দিনে খেলতে নেমে ২৬ রানের মধ্যে দুটি উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অধিনায়ক ব্রাথওয়েট ও শেই হোপ বিদায় নেন দুই অঙ্কের রানে পৌঁছানোর আগেই। পাওয়েল ও মায়ার্স বিপযয় রোধ করে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন।

দলীয় ৯০ রানের মাথায় মায়ার্স আউট হন রাবাদার বলে। এরপরই মাহারাজের আবির্ভাব। করেন হ্যাটট্রিক। ৩৭তম ওভারের তৃতীয় বলে তিনি প্রথম ফেরান ফিফটি করা পাওয়েলকে (৫১)। পরের বলে আউট জেসন হোল্ডার। পঞ্চম বলে জশুয়া ডি সিলভাকে আউট করে হ্যাটট্রিকের আনন্দে মাতেন মাহারাজ। টেস্টে দ্বিতীয় দক্ষিণ আফ্রিকান হিসেবে হ্যাটট্রিক করলেন মাহারাজ।

বাকি চার উইকেটে আহামরি কিছু করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গুটিয়ে যায় অল্প রানেই। ব্লাকউড ২৫ ও কেমার রোচ করেন ২৭ রান। প্রোটিয়াদের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৪ উইকেট নেন হ্যাটট্রিকম্যান কেশব মাহারাজ। রাবাদা নেন তিন উইকেট। এক উইকেট পান লুঙ্গি এনগিডি।