মিরাজের সেঞ্চুরিতে ভর করে রানের পাহাড়ে টাইগাররা

সংগ্রহীত

মিরাজের সেঞ্চুরিতে ভর করে রানের পাহাড়ে টাইগাররা

জোমেল ওয়ারিকারেন করা বলটি ফাইন লেগে পাঠিয়ে ডাবল নিয়ে আনন্দে লাফিয়ে ওঠলেন মেহেদি হাসান মিরাজ।

এরপর হেলমেট খুলে, দুই হাত উঁচিয়ে মুখে বড় হাসিতে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি উদযাপন সারলেন তিনি। এর সঙ্গে শুকরিয়া আদায় করে সিজদাহ করে ফেলেন।

তামিম-মুশফিকরা যেখানে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি, সেখানে নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির পাশাপাশি দলকে চালকের আসনে নিয়ে যাওয়ার পর এমন আনন্দ তারই মানায়। অবশ্য ১০৩ রান করার পরই আর ধৈর্য রাখতে পারেননি তিনি। কর্নওয়েলের বলে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হলে দলের ইনিংস থামে ৪৩০ রানে।

এর আগে চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুটা খুব একটা সুখকর হয়নি বাংলাদেশের জন্য। দিনের শুরুতেই খেই হারিয়ে ফেলেন সাকিব-লিটন। খেলা শুরুর পর দলের স্কোরবোর্ডে মাত্র ৬ রান যোগ করেই বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেন লিটন। তার সংগ্রহ ছিল ৩৮ রান।

দীর্ঘ সময় উইকেট আগলে দাঁড়িয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। দীর্ঘদিন পর টেস্টে ফেরা টাইগার অলরাউন্ডার তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের ২৫তম ফিফটি। ৬৮ রান করে আউট হন সাকিব।

তবে স্বপ্ন দেখিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ। তার ব্যাটে ভর করেই রানের পাহাড় গড়েছে বাংলাদেশ।

অনূর্ধ্ব-১৯ যুবদলে স্পিনিং অলরাউন্ডার হিসেবে পরিচিত ছিলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। তবে জাতীয় দলে এসে ব্যাটিংয়ে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। আজ সেই মিরাজের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ৪৩০ রানের বড় সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। ১৬২ বলে ১৩ বাউন্ডারিতে ১০৩ রানের ঝলমলে ইনিংস সাজিয়েছেন মিরাজ। অবশ্য মিরাজের এ সেঞ্চুরিতে অবদান রয়েছে তাইজুল ও নাঈম হাসানের। ১১৭ বলে মিরাজ-তাইজুল জুটিতে এসেছে ৪৪ রান। আর নাঈমের সঙ্গে ৬০ রানের জুটি গড়ে দলকে চালকের আসনে বসান তিনি।

২০১৮ সালের নভেম্বরের পর টেস্টে অর্ধশতক হাঁকিয়েছিলেন মিরাজ। সর্বশেষ ফিফটিটি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।