মুক্তির আগেই ২৫০ কোটি রুপি ঘরে তুলে নিল প্রভাস-পূজার, রাধে শ্যাম

মুক্তির আগেই ২৫০ কোটি রুপি ঘরে তুলে নিল প্রভাস-পূজার, রাধে শ্যাম

গত নভেম্বরে ট্রেলার মুক্তির পর থেকেই বলিপাড়ায় প্রভাস, পূজা হেগড়ে অভিনীত প্রেম-কাহিনি ‘রাধে শ্যাম’ নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে। কিন্তু কোভিড-কাঁটায় পিছিয়ে গিয়েছে ওই ছবির মুক্তি।

গত ১৪ জানুয়ারি পর্দায় আসার কথা ছিল ‘রাধে শ্যাম’। কিন্তু করোনার সাম্প্রতিক স্ফীতির কারণে এসএস রাজামৌলির পরিচালনায় রামচরণ, জুনিয়র এনটিআর, আলিয়া ভাট, অজয় দেবগান অভিনীত ‘আরআরআর’-এর মতোই পিছিয়ে যায় ‘রাধেশ্যাম’-এর মুক্তির দিনক্ষণ।

‘রাধেশ্যাম’ ভারতের মাটিতে নির্মিত বিপুল বাজেটের ছবিগুলোর মধ্যে একটি। যার ফলে মুক্তির তারিখ পিছিয়ে যাওয়ায় আর্থিক ক্ষতি নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিলেন পরিচালক রাধাকৃষ্ণ কুমার।

তবে এখন করোনা সংক্রমণ কিছুটা স্তিমিত হওয়ায় ছবি মুক্তির নতুন তারিখ ঘোষণা করলেন নির্মাতারা। গত বুধবার নেটমাধ্যমে জানানো হয়েছে, আগামী ১১ মার্চ মুক্তি পেতে চলেছে এই ছবি।

এদিকে ছবি মুক্তির আগের ২৫০ কোটি রুপি ঘরে তুলে নিয়েছে ‘রাধে শ্যাম’।

শুধু মাত্র টেলিভিশন এবং ডিজিটাল স্বত্ব বিক্রি করেই নাকি মোটা অংক ইতোমধ্যে প্রযোজকদের ঘরে ঢুকে গিয়েছে।

কিছু দিন আগেই কানাঘুষো শোনা গিয়েছিল, একটি ওটিটি সংস্থা ‘রাধে শ্যাম’ ছবির জন্য ৪০০ কোটি টাকাও দিতে চেয়েছিল প্রযোজকদের। যদিও তা কোনও পক্ষ থেকেই নিশ্চিত করা হয়নি।

‘বাহুবলী’ ছবির পর দেশের জনপ্রিয় অভিনেতাদের মধ্যে প্রভাস একজন। তার মুখ চেয়েই আগে পর্দায় মুক্তি চাইছেন নির্মাতা, এমনটাই জানিয়েছিলেন ‘রাধে শ্যাম’-এর সঙ্গে যুক্ত এক সূত্র।

এই ছবি নিয়ে আরও একটি গুজব রটেছে বলিপাড়ায়। ‘রাধে শ্যাম’-এ অভিনয়ের জন্য প্রযোজকদের কাছ থেকে নাকি ১০০ কোটি টাকা চেয়ে বসেছেন প্রভাস।

শুধু তাই নয়, পর্দায় মুক্তির মুনাফা থেকেও নাকি কিছু অংশ চেয়েছেন অভিনেতা। যদিও এ বিষয়ে মুখ খোলেননি অভিনেতা এবং নির্মাতারা।

৩১ ডিসেম্বর শাহিদ কাপুর অভিনীত ‘জার্সি’ এবং জানুয়ারির শুরুতে ‘আরআরআর’-এর মুক্তি বাতিল হওয়া দিয়ে ২০২২ সালের ক্ষতির খতিয়ান শুরু। ভরসা ছিল প্রভাসের ‘রাধে শ্যাম’ এবং অক্ষয়কুমারের ‘পৃথ্বীরাজ’-এর উপরে।
এই দু’টি বড় ছবি জানুয়ারিতে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। তা-ও বাতিল হওয়ায় বছরের শুরুতেই প্রায় দেড় হাজার কোটি রুপি ক্ষতির ধাক্কা সামলাতে হয়েছে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিকে।

তবে এবার এক এক করে মুক্তি পেতে চলেছে সেই সব ছবি। এখন দেখা যাক। পরিস্থিতির কতটা উন্নতি হয়।