মোসাদের বন্দুক দিয়ে ইরানের পরমাণুবিজ্ঞানীকে হত্যা করা হয়

সংগ্রহীত

মোসাদের বন্দুক দিয়ে ইরানের পরমাণুবিজ্ঞানীকে হত্যা করা হয়

ইরানের বিখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানীকে ইসরাইলের তৈরি বন্দুক দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রাজধানী তেহরানের কাছে মোহসেন ফাখরিজাদে আততায়ীর হামলায় নিহত হন তিনি। ইসরাইলের কুখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ একটি ওয়ান-টন বন্দুকের যন্ত্রাংশ পাচার করে ইরানে নিয়ে এসেছিল। পরে ওই অস্ত্র দিয়েই বিখ্যাত এই পরমাণু বিজ্ঞানীকে হত্যা করা হয়েছে।

গোয়েন্দা সূত্রের বরাতে খবরে বলা হয়, ইসরাইলি ও ইরানি নাগরিকদের ২০ গুপ্তচরের একটি দল এই অতর্কিত হামলা চালিয়েছে। এর আগে অন্তত আটমাস ফাখরিজাদেহের ওপর নজরদারি করা হয়েছিল।

জিউশ ক্রনিকলে বুধবার এক প্রতিবেদনে এসব জানানো হয়েছে। সোমবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে ইরানের গোয়েন্দা বিষয়ক মন্ত্রী মাহমুদ আলাভি বলেন, গুপ্তহত্যায় ইরানি সশস্ত্র বাহিনীর এক সদস্য জড়িত ছিলেন।

ইরানি গণমাধ্যম জানায়, তার গাড়িতে হামলার পর গত ২৭ নভেম্বর হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন ফাখরিজাদেহ।

তার নিহত হওয়ার পরেই অবৈধ ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইলকে দায়ী করে ইরান। শিয়াসংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ এক টুইট পোস্টে বলেন, ইসরাইলি ভূমিকার মারাত্মক আভাস রয়েছে।

এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত ইসরাইলের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। বুধবার ইসরাইলি সরকারের মুখপাত্র বলেন, এসব বিষয়ে আমরা কোনো কথা বলি না। আমাদের অবস্থানের কোনো পরিবর্তন আসেনি।

পশ্চিমা বিশ্ব ও ইসরাইলের দাবি, ইরানের গোপন পরমাণু কর্মসূচির নেতৃত্ব দিয়েছেন ৫৯ বছর বয়সী বিজ্ঞানী ফাখরিজাদেহ। যদিও এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে ইরান।