রাশিয়া-ইউক্রেন সোমবার তৃতীয় দফা আলোচনায় বসছে

রাশিয়া-ইউক্রেন সোমবার তৃতীয় দফা আলোচনায় বসছে

চলমান যুদ্ধাবস্থার মধ্যেই তৃতীয় দফার আলোচনায় বসতে সম্মত হয়েছে ইউক্রেন ও রাশিয়া। আগামীকাল সোমবার তৃতীয় দফার আলোচনায় মিলিত হবে দুই দেশ। খবর রয়টার্সের।

শনিবার রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনের আলোচক ডেভিড আরাখামিয়া ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে বলেন, সোমবার তৃতীয় দফার আলোচনা শুরু হবে।

তবে বিস্তারিত কিছুই জানান নি তিনি।

আগ্রাসনের বিষয়ে ন্যাটো মিত্রদের সাথে আলোচনার জন্য শনিবার মলদোভায় পৌঁছেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এন্টোনি ব্লিঙ্কেন।

গতকাল শনিবার এক টেলিভিশন বার্তায় ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি আবারও জানিয়েছেন, ইউক্রেনীয়রা কখনোই হাল ছেড়ে পিছু হটবেনা এবং প্রতিরোধ বন্ধ করবেনা।

এদিকে, ইউক্রেনে বেসমারিকদের নিরাপদে সরে যাওয়ার জন্য দুটি শহরে সাময়িক যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিয়েও তা মানছে না রাশিয়া। শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টা থেকে যুদ্ধবিরতির ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা যেতে না যেতেই সন্ধ্যা ৬টা থেকে আবারও আক্রমণাত্মক পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে মস্কো।

মারিউপোলের মানবিক করিডোর এর জন্য নির্ধারিত রুটে রুশ বাহিনী বোমা হামলা অব্যাহত রাখায় লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে রাত নামার সাথে সাথেই ওডেসা থেকে ৬০ কিলোমিটার পশ্চিমে অবস্থিত পালাঙ্কা সীমান্ত ক্রসিং দিয়ে মলদোভার সীমান্তে পালিয়ে গেছেন অনেক ইউক্রেনীয় শরণার্থী।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গতকাল ইউক্রেনের দুটি শহরের বেসামরিক নাগরিকদের জন্য মানবিক করিডর খুলে দিতে সাময়িকভাবে যুদ্ধবিরতির কথা ঘোষণা করে। স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে চার ঘণ্টার জন্য এই করিডর খুলে দেওয়ার কথা জানানো হয়েছিল। ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার দশম দিনে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ইউক্রেনের বন্দর শহর মারিওপোল এবং কাছের ভলনোভাখা শহরের বাসিন্দাদের জন্য এ সিদ্ধান্ত নেয় মস্কো।