লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া নিলেও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

সংগ্রহীত

লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া নিলেও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় হলেও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। সদরঘাটের প্রতিটি লঞ্চের ডেকে যাত্রী তোলা হয়েছে ঠাসাঠাসি করে। সামাজিক দূরত্বের নির্দেশনা থাকলেও তা মানেন নি কোনো লঞ্চের মালিক। 

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কথা ছিল বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) থেকে প্রত্যেকটি লঞ্চ ছাড়বে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে। কিন্তু সরেজমিনের চিত্র পুরোপুরি উল্টো।

সদরঘাট ঘুরে দেখা যায়, প্রত্যেকটি লঞ্চের ডেকে যাত্রী তোলা হয়েছে ঠাসাঠাসি করে। প্রত্যেক যাত্রীর পাশে জায়গা ফাঁকা রাখার নির্দেশনা থাকলেও তা মানেন নি কোনো লঞ্চের মালিক। যাতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখান যাত্রীরা।

এক যাত্রী বলেন, ‘ভাড়া বাড়ানো হয়েছে কিন্তু লঞ্চের সিট খালি নাই। সরকারিভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যাত্রী কম নেবে, ভাড়া বেশি নেবে। দুইজনে সিটে একজন নেয়ার কথা ছিল, এখন দেখি প্রত্যেক সিটেই যাত্রী এবং সিট ছাড়াও অতিরিক্ত যাত্রী নিয়েছে।’

তাদের শঙ্কা, গাদাগাদি করে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে ডেকে এভাবে যাত্রী নেয়ার লঞ্চ থেকে উল্টো করোনা ছড়াতে পারে।

বিআইডব্লিউটিএ বলছে, নির্দেশনা মানাতে ম্যাজিস্ট্রেটসহ মাঠে রয়েছেন তারা। শুক্রবার (০২ এপ্রিল) থেকে ডেকে রং করে সিট নির্দিষ্ট করে দেয়া হবে বলেও জানায় সংস্থাটির সদরঘাট প্রধান।

প্রতিদিন ঢাকা থেকে দেশের ২২ জেলার অর্ধশতাধিক লঞ্চ ছেড়ে যায়।