শান্তির দেশে কেউ অশান্তি সৃষ্টি করলে ছাড় দেওয়া হবে না: র‌্যাবের ডিজি

সংগ্রহীত

শান্তির দেশে কেউ অশান্তি সৃষ্টি করলে ছাড় দেওয়া হবে না: র‌্যাবের ডিজি

সুনামগঞ্জের শাল্লায় ফেইসবুকে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে নিয়ে কটাক্ষ করে পোষ্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে শাল্লা উপজেলার নোয়াপাড়া গ্রামে হিন্দুদের বাড়িতে হামলার ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন র‌্যাবের মহা পরিচালক (ডিজি) আব্দুলাহ আল মামুন চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার সকালে হেলিকপ্টার যুগে তিনি শাল্লা উপজেলার নোয়াপাড়া গ্রামে নামলে সেখানে হিন্দু সম্প্রাদয়ের মানুষ মিছিল দিতে থাকে। পরে তিনি সবাইকে নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির ও বাড়িঘর পরির্দশন করেন।  

পরির্দশন শেষে র‌্যাবের মহা পরিচালক (ডিজি) আব্দুলাহ আল মামুন চৌধুরী জানান, বাংলাদেশ হচ্ছে শান্তির দেশ এই শান্তির দেশে যদি কেউ অশান্তি সৃষ্টি করে তাহলে তাদের কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। 

গতকাল বুধবার এই গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়রে ওপর যে হামলা হয়েছে সেটি খুব দুখ জনক। এই ঘটনার সাথে যারা জরিত তাদের কেউ রেহাই পাবে না। তাদের খুঁজে বের করে পুরো ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে যারাই দোষী তাদেরকেই আইনের আওতায় আনা হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জ র‌্যাব-৯ এর লে.কর্ণেল আবু মুসা মো.শরীফুল ইসলাম, সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, লে.কমান্ডার ফিঞ্চন আহমেদ, এ এসপি মো.আব্দুল্লা প্রমুখ।  
  
উলেখ্য, গতকাল বুধবার সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে আল্লামা মামুনুল হককে ফেসবুকে কটাক্ষ করায়  তার সমর্থকরা বেশ কিছু বাড়িঘরসহ মন্দিরে  ভাংচুর লুটপাট করার অভিযোগ উঠে।

নোয়াপাড়া গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক যুবক ফেসবুক আইডি থেকে আল্লামা মামনুল হককে কটাক্ষ করে স্ট্যাটাস দেওয়ার পর  রাতে এলাকাবাসী থাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের কাছে তুলে দেয়। 

এরপর বুধবার সকাল থেকে দিরাই শাল্লা উপজেলার হাজারো মানুষ গ্রামটি ঘেরাও করে রাখে। পরে নোয়াগাঁও গ্রামে হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকটি বাড়িঘরসহ মন্দিরে হামলা করে। তবে কেউ হতাহত হননি।

বুধবার শাল্লা উপজেলার নোয়াপাড়া গ্রামে হিন্দুদের বাড়িতে হামলার ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন ও পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান। তবে এখন পর্যন্ত এই ঘটনায় কোনো মামলা বা আটক করা হয়নি।