শাসক নয় সেবক হয়ে কাজ করতে ইচ্ছুক হলদিয়া পাতাবাড়ীর আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুর রহমান আজীজ

শাসক নয় সেবক হয়ে কাজ করতে ইচ্ছুক হলদিয়া পাতাবাড়ীর আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুর রহমান আজীজ

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আসন্ন। অনেকেই ইতোমধ্যে প্রার্থীতা ঘোষণা দিয়েছেন। তাদের সবাইকে অভিনন্দন। কক্সবাজার উখিয়া উপজেলার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড পাতাবাড়ীবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী ছিলো একজন যোগ্য সেবক, যে অন্তত বুঝবেন জনগণের ভাষা।

জনগণ চায় নতুন সেবক তাদের জনদূর্ভোগ লাগবে নিষ্ঠার সাথে কাজ করবেন। প্রতিটি কাজের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা সহ সকলপ্রকার অনিয়ম, দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমার অবস্থান থাকবে স্পষ্টত।

উখিয়া উপজেলা অন্যতম জনপদ ৩নং হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড পাতাবাড়ীর সন্তান হিসেবে আগামী আসন্ন হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেছি।

কেননা নিজ জন্মস্থানকে দেওয়ার অনেক কিছুই বাকি আছে। আমি যেমন আমার দলকে ভালোবাসি ঠিক একই ভাবে জন্মস্থানের প্রিয় পাতাবাড়ী বাসীকেও অন্তর থেকে ভালোবাসি। আর আমার আজকের এখানে আসার পেছনে প্রিয় পাতাবাড়ী বাসীর দোয়া, ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণা ছিল।

অন্যরা কে কি বললো তাতে আমার কিছুই যায় আসে না। আমি আমার কথা বলতে চাই! কেননা আসন্ন হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে অনেকেই ইউপি সদস্য পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করতে চাইছে। নিজেকে জনসম্মুখে তোলে ধরতে কেউ কেউ ভিন্ন ভিন্ন চটকদার প্রচারণার চেষ্টা করছেন। সেক্ষেত্রে বিভিন্ন জনসম্মুখে গেলে কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাতাবাড়ীবাসীর কিছু প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। অন্যেরা এড়িয়ে গেলেও আমি উত্তর দিতে প্রস্তুত। কেননা আমার পাতাবাড়ীবাসী সচেতন। সেজন্য পাতাবাড়ীবাসীকে বিনয়ের সাথে কিছু কথা বলতে চাই। তারাই সিদ্ধান্ত নিবে তাদের ঘরের সন্তান আজিজুর রহমান আজিজকে সেবা করার সুযোগ দিবে কিনা।

জনগণের কাছে যাওয়ার কিংবা তাদের সেবা করার অন্যতম মাধ্যমই হচ্ছে রাজনীতি করা, জনপ্রতিনিধি হয়ে সেবার পরিধি আরো বাড়ানো সম্ভব হয়। তবে হ্যাঁ, এর বাইরে থেকেও সেবা করা গেলেও সেক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা থেকে যায়। আর আমি ছাত্রকাল থেকে রাজনীতি করছি। জনপ্রতিনিধি হয়ে জনসেবা করার আকাংখা থাকাটা আশা করি দোষের কিছু না।

ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে অঙ্গাঙ্গী ভাবে জড়িত, আমার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। আমার পাতাবাড়ীবাসীর বোধগম্য অতীতে দূর্নীতি করিনি ভবিষ্যতেও করব না এবং কাউকে করারও সুযোগ দিব না। ইনশাআল্লাহ।

আমি গতানুগতিক নির্বাচনী ওয়াদা বা বেফাঁস বক্তব্যের ঘোর বিরোধী। অন্যদের মত বড় বড় লেকচার না দিয়ে যতটুকু করতে পারব ততটুকুই বলব। অনেকের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে দিনরাত গণমানুষের সেবায় নিজেকে কেন নিবেদিত রাখছি! কেন? যেটা সত্যিই দুভাগ্যজনক। অযোগ্য, অথর্ব লোকের কাছে দায়িত্ব দিলে যা হয় তা পাতাবাড়ীবাসী হারে হারে টের পেয়েছে।

আমি আজিজুর রহমান আজীজ একটি একটি দূর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়ার স্বপ্ন দেখি। আমি সামগ্রিক পাতাবাড়ীবাসীর উন্নয়ন ও পরিকল্পনার কাজে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের উপস্থিতিতে, তাদের অংশগ্রহনে জবাবদিহিতা মূলক নিশ্চিত করব। সেইসাথে দীর্ঘদিনের ঝেঁকে বসা দুর্নীতি, সন্ত্রাস, মাদক আখড়ার মূলৎপাটন করব। জনগণের সেবা নিশ্চিতকল্পে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের অংশগ্রহনে একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করা হবে। জনগণের দোরগোড়ায় নাগরিক সেবা পৌঁছে দিব। আমি রাষ্ট্র কিংবা জনগণের এক চিমটি আমানতের খেয়ানত করব না।

আমি বিশ্বের অন্যতম ঐতিহ্যবাহি দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী। আমি আমার দলের গঠনতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আর আমার দল এদেশের গণমানুষের দল। এর বাইরে থেকেও দলমত নির্বিশেষে আপামর জনসাধারনের সেবক হওয়ার আন্তরিক ইচ্ছা আমার আজন্মের। অন্যের মত লুকোচুরি কিংবা ছলচাতুরী আমার স্বভাব বিরোধী।

সকল প্রকার দুর্বিত্তায়নের বিরুদ্ধে আমার অবস্থান থাকবে স্পষ্ট। জনগণকে জিম্মি করে এমন সিন্ডিকেট ভেঙে দেওয়া হবে। মানুষ প্রাণভরে নিশ্বাস নিবে। নির্মল সবুজাচ্ছন্ন শহর, বসবাসের উপযুক্ত পরিচ্ছন্ন নগরায়ন, সকলপ্রকার অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি, জবাবদিহিতামূলক পাতাবাড়ী বাসীর স্বপ্ন আমার আজন্মের।

শাসক নয়, প্রভাবশালী নেতাও নই আমি আপনাদের সন্তান হিসেবে, ইউপি সদস্যনহয়ে সেবক হিসেবে পাশে থাকতে চাই। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে আপনাদের পাশে ছিলাম আছি থাকবো ইনশাল্লাহ। সবাইকে সাথে নিয়ে আরো অনেক দূর এগিয়ে যেতে চাই— পাশে চাই।

জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু। আজিজুর রহমান আজীজুর রহমান আজীজ ৩নং হলদিয়া পালং, ৪নং ওয়ার্ড