শুভ জন্মদিন: সাহিত্যের রবি,ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবি

শুভ জন্মদিন: সাহিত্যের রবি,ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবি

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলা সাহিত্যাকাশে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বহু গুণী কবি,সাহিত্যিক,উপন্যাসিক ও গবেষক তাঁদের বলিষ্ঠ অবদান রেখেছেন।তাঁদের মধ্যে অন্যতম কয়জন হলেন- বাঙালি উপন্যাসিক ও সাংবাদিক অদ্বৈত মল্লবর্মণ;বাঙালি কবি, সাহিত্য-সমালোচক ও ছান্দসিক আবদুল কাদির; আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি ও উপন্যাসিক আল মাহমুদ;ছন্দবিশারদ প্রবোধচন্দ্র সেন (১৮৯৭-১৯৮৬), খ্যাতিমান কবি সানাউল হক (১৯২৪-১৯৯৩), একুশে পদক ও নজরুল স্মৃতি পুরস্কার প্রাপ্ত কবি সুফী জুলফিকার হায়দার;নজরুল গবেষক ও সাহিত্যিক মোহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ; একুশে পদক ও বাংলা একাডেমী পুরস্কার প্রাপ্ত কবি ফজল শাহাবুদ্দীন;লেখক ও গবেষক তিতাস চৌধুরী;শিশু সাহিত্যিক আলী ইমাম;কবি জয়দুল হোসেন প্রমুখ।

গত দুই দশক ধরে যে নিভৃতচারী গুণী মানুষটি বাংলা সাহিত্যাকাশে মিটমিট করে জ্বলে নিজের অস্তিত্বের জানান দিচ্ছেন,তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তারুণ্যের কবি খ্যাত,লেখক ও গবেষক এস এম শাহনূর। আজ ৮ সেপ্টেম্বর ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া নামকরণের ইতিকথা’র লেখকের ৪২তম জন্মদিন। ১৯৭৯ সালের এই দিনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলাধীন বল্লভপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। পেশা-লেখালেখি ও গবেষণা।
পিতার নাম হাজী আব্দুল জব্বার বল্লভপুরী (রহ.), মাতার নাম জাহানারা বেগম। ছোটবেলা থেকেই কবিতা ও গল্প লেখায় হাতে খড়ি। ছাত্র জীবনে তিনি ছিলেন প্রতি পরীক্ষায় ফার্স্ট হওয়া অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র। তিনি ১৯৯৭ সনে এস এস সি (কুমিল্লা বোর্ড স্কলারশীপ সহ)১৯৯৯ সনে এইচ এস সি এবং ২০০৩ সনে বি এস এস এবং Marine and Warfare Academy of China.থেকে উচ্চতর প্রযুক্তি বিষয়ে পড়াশোনা করেন।কর্মজীবনে জাতিসংঘের UNIFIL এ দীর্ঘ সময় কর্মরত ছিলেন। চষে বেড়িয়েছেন ইউরোপ-এশিয়ার নানান দেশ।পত্রিকায় প্রকাশিত প্রথম কবিতা ‘অগ্নি বাণী’ ১৯৯৪ সালে এবং বেতারে ‘স্বপ্ন দেখার নেইতো মানা’ কবিতা প্রচারিত হয় ১৯৯৬ সালে।২০০৫ সালের একুশে বই মেলায় “স্মৃতির মিছিলে” নামক প্রথম কাব্য গ্রন্থ প্রকাশিত হয়। গবেষণাধর্মী, ভ্রমণ, জীবনী, ইতিহাস-ঐতিহ্য ও কবিতাসহ প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ১৪টি।

➤উদ্ভাবক: Merit Theory.
✪ প্রতিষ্ঠাতা-সভাপতি: তিতাস সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদ।
✪ প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালক, LITTLE FLOWER INTERNATIONAL SCHOOL , DHAKA.

➤পুরস্কার ও সম্মাননা:
জাতিসংঘ শান্তি পদক ২০১৫, বিশ্ববাঙালি সম্মাননা ২০১৯ (ঢা.বি.) ; সকালের সূর্য সাহিত্য বাসর সম্মাননা ২০১৯, ,কলম সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮, কাব্যজগৎ কবিরত্ন সম্মাননা ২০১৮, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওংকার শৃণুতা সম্মাননা ২০২০, কবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত সাহিত্য পুরস্কার ২০১৯ এবং অমর একুশে সাহিত্য পুরস্কার ২০২০ লাভ করেন। [বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে একাধিকবার গুণিজন সংবর্ধনা প্রাপ্ত ]