সিকিমে আবারো সংঘর্ষ চীন-ভারতীয় সেনাদের মধ্যে, সংলাপ চলমান

সংগ্রহীত

সিকিমে আবারো সংঘর্ষ চীন-ভারতীয় সেনাদের মধ্যে, সংলাপ চলমান

সীমান্ত নিয়ে বিরোধের জেড়ে চীন এবং ভারতীয় সেনাদের মধ্যে আবারো সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে,ভারতীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসি এমনটাই জানিয়েছে।

গত বুধবার উত্তর সিকিমে এই সহিংসতা হয়েছে বলে জানা যায়। ভারতের সেনাবাহিনী বলেছে যে, এটি একটি ছোট ঘটনা যা ইতোমধ্যেই সমাধান হয়ে গেছে।

সাম্প্রতিক সময়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা অনেক বেশি বিরাজমান। বিতর্কিত সীমান্তবর্তী অঞ্চলে মারাত্মক সংঘর্ষের পর থেকে এটা বেড়েই চলছে।

গত জুন মাসে লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় একটি সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা মারা গিয়েছিল। চীনও হতাহতের খবর প্রকাশের বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেনি।

সিকিমের নাথু লা পাসে সর্বশেষ সংঘর্ষটি হয়েছে বলে ভারতীয় সামরিক কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে। 

সিকিম অঞ্চলটি ভুটান এবং নেপালের মধ্যে স্যান্ডউইচড হয়ে গেছে। লাদাখ এলাকা থেকে ২৫০০ কিলোমিটার পূর্বে নাথু লা পাস অবস্থিত। 

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, একটি চীনা টহল ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করেছিল এবং তাকে বাধ্য করা হয়েছিল। এখনও পর্যন্ত ভারত বা চীন থেকে সরাসরি কোন মন্তব্য করা হয়নি।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “২০ শে জানুয়ারী, ২০২১ সালে উত্তর সিকিমের নাথু লা অঞ্চলে একটি ছোটখাটো মুখোমুখি হওয়ার ঘটনা ঘটেছিলো। এটি প্রতিষ্ঠিত প্রোটোকল অনুসারে স্থানীয় কমান্ডাররা সমাধান করেছেন।”

ফ্লাশপয়েন্ট এবং সংলাপ : সংঘর্ষ সম্পর্কে সর্বশেষ প্রতিবেদনগুলিতে দেখা যায় যে, উত্তেজনা এখনও চলছে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিবৃতিতে দেখা গেছে যে উভয় জাতি এখনও সংলাপের পথটি উন্মুক্ত রাখতে আগ্রহী। উভয় দেশই সংঘর্ষ এড়াতে চায়।

তারা উত্তেজনা লাঘব করার জন্য একাধিক সামরিক-স্তরের আলোচনা চালিয়েছে। তবে তাদের মধ্যে এখনও তেমন কোন সমাধান সূত্র আসে নি।

সৈন্যরা এখনও তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী সীমান্তের বেশ কয়েকটি ফ্ল্যাশপয়েন্টে একে অপরের মুখোমুখি হয়ে দাড়িয়ে আছে।

প্রাক্তন ভারতীয় কর্মকর্তারা বলেছেন যে পরিস্থিতি এরকম হলে এই ধরণের সংঘাত এড়ানো যায় না। তবে তারা একমত যে, উভয় দেশই যুদ্ধ চায় না। এমনকি ছোটখাটো যুদ্ধও নয়। এজন্য আলোচনা চালিয়ে যাওয়া দরকার। 

ভারত ও চীন বিশ্বের দীর্ঘতম বিতর্কিত সীমান্ত ভাগাভাগি করে নিয়েছে এবং উভয় পক্ষই অপর থেকে বৃহত্তর ভূখন্ড দাবি করে আসছে।

৩৪৪০ কিলোমিটার (২,১০০ মাইল) সীমান্ত বরাবর নদী, হ্রদ এবং স্নোকেপগুলি বোঝায় যে লাইনটি স্থানান্তর করতে পারে। সৈন্যদের অনেক পয়েন্টে মুখোমুখি করে তোলে এবং কখনো কখনো সংঘাতের দিকে নিয়ে যায়।

১৯৬২ সালে উভয় দেশই একমাত্র যুদ্ধ করেছিলো এবং ঐ যুদ্ধে ভারত পরাজিত হয়েছিলো। 

সূত্র: বিবিসি