সিরিজ ৪-০ হওয়ার সুযোগ দেখছেন পন্টিং

সংগ্রহীত

সিরিজ ৪-০ হওয়ার সুযোগ দেখছেন পন্টিং

অ্যাডিলেডে প্রথম টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ রিকি পন্টিং।

তিনি মনে করেন, বিরাট কোহলির অনুপস্থিতি কাজে লাগাতে চাইবে অস্ট্রেলিয়া। এই পরিস্থিতি থেকে সিরিজ জেতার গন্ধ ইতিমধ্যেই পেতে শুরু করেছেন টিম পেন। পন্টিং নিশ্চিত, এবার ভারতকে ৪-০ হারানোর জন্য ঝাঁপাতে চান তার দেশের ক্রিকেটারেরা।

পন্টিংয়ের ধারণা, অ্যাডিলেডে ৩৬ রানে ইনিংস শেষ হয়ে যাওয়ায় গভীর ক্ষত তৈরি হয়েছে ভারতের আত্মবিশ্বাসে। এই পরিস্থিতিতে দলকে টেনে তোলার মতো নেই কোনো ক্রিকেটার। কারণ, বিরাট কোহলি দেশে ফিরছেন সন্তান-সম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে।ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটে পন্টিং বলেছেন, ‘প্রথম টেস্টে এভাবে হারের পরে গভীর ক্ষত তৈরি হয়েছে ভারতীয় শিবিরে।

সিরিজ ৪-০ হওয়ার সুযোগ অবশ্যই রয়েছে। আশা করি, মেলবোর্ন টেস্টেও মীমাংসা হবে। যদি অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে যায়, তাহলে শেষ দুটি টেস্টে ভারত আরও বিপদে পড়তে পারে। সেই জায়গা থেকে ভারত ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কিনা জানি না।’

কোহলিকে ছাড়া ভারত কীভাবে এই চাপ সামলায় সেটাও দেখতে চান পন্টিং। তার কথায়, ‘বিরাট ছাড়া ভারতীয় দল কী রকম আচরণ করে সেটাও জানা প্রয়োজন। আমার ধারণা, ভারতের জন্য এই পরীক্ষা সত্যি কঠিন। এই জায়গা থেকে ওদের তুলে ধরার মতো কেউ নেই।’

প্রথম টেস্টে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের ভরাডুবির পরে পন্টিং চান, দলে আরও দুটি পরিবর্তন করুন অজিঙ্ক রাহানেরা। পৃথ্বী শয়ের পরিবর্তে পন্টিং চান শুভমন গিলকে। ঋদ্ধিমান সাহার জায়গায় দেখতে চান ঋষভ পন্থকে।

পন্টিংয়ের যুক্তি, ‘কোহলি না থাকায় ভারতীয় ব্যাটিংয়ে গভীরতা প্রয়োজন। মিডল অর্ডারে তাই ঋষভ বড় ভূমিকা পালন করতে পারে। ওপেনিংয়েও শুভমনের মতো ছন্দে থাকা ব্যাটসম্যানকে খেলানো উচিত। রান করার ফলে ওরা এখন আত্মবিশ্বাসী। সেটাই কাজে লাগানো উচিত ভারতের।’

তিনি যোগ করেন, ‘ভারতীয় দলের বোঝা উচিত অস্ট্রেলিয়া আর এক ইঞ্চিও জায়গা ছাড়বে না। তাই দলে এমন ক্রিকেটারদের নেওয়া হোক যাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের কোনো অভাব নেই।’

অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক আরও জানিয়েছেন, একবার জয়ের গন্ধ পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তারা এবার সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপাবে। তবে ডেভিড ওয়ার্নার ফিরে এলে অস্ট্রেলিয়াও যে দল বাছাই নিয়ে সঙ্কটে পড়বে তা নিয়ে সন্দেহ নেই। কারণ, ওপেনার জো বার্নস ছন্দে ফিরেছেন। ম্যাথু ওয়েড শুরুটা খারাপ করেননি।

পন্টিংয়ের তাই মত, ‘ওয়ার্নার ফিট হলে নিঃসন্দেহে ওকে দলে নেওয়া উচিত। তখন গ্রিন ও ওয়েডের মধ্যে কোনো একজনকে রাখার সিদ্ধান্ত নিতে হবে। পুকভস্কি ফিট হলেও খেলানো হোক বার্নসকে। এত দিন ওর ছন্দে ফেরার অপেক্ষাই করা হচ্ছিল। এই ছোট কয়েকটি সিদ্ধান্ত ঠিকঠাক নিলেই অস্ট্রেলিয়ার কোনো সমস্যা থাকবে না। কিন্তু ভারতের চাপ অনেক বেশি। অনেকগুলো সিদ্ধান্ত নিয়ে ভাবতে হবে ওদের।’